স্বাধীনতা দিবসের গনসমাবেশে বাদল গ্রেফতার

শেরপুর প্রতিনিধি: শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে র‌্যাব সদৃশ্য কালো পোশাক পড়ে এক যুবকের মুক্তিযোদ্ধা জনতা মঞ্চের স্বাধীনতাদিবস গণ সমাবেশে যোগ দেওয়ায় তিন জনের নামে ও অজ্ঞাত নামা কয়েকজনকে আসামী করে নালিতাবাড়ী থানা পুলিশ মামলা দায়ের করেছে।

সোমবার (২ এপ্রিল) দুপুরে এ মামলার অজ্ঞাত নামা এক আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

এ মামলার আসামীরা হলেন উপজেলার পৌরশহরের কান্দা ছিটপাড়া মহল্লার ইন্না শেকের পুত্র চা বিক্রেতা বাদল শেক, গড়কান্দা মহল্লার আব্দুল হান্নানের পুত্র চলতি এইচএসসি পরীক্ষার্থী অমিত হাসান ও নামা ছিটপাড়া মহল্লার মনছুর আলীর পুত্র সারোয়ার হোসেন।এর আগেগতকাল রোববার রাতে পুলিশ সহযোগি হিসেবে তারাগঞ্জ উত্তর বাজার এলাকার মাহমুদুর রহমানের ব্যবসায়ী পুত্র আলমগীর কবির মিথুনকে গ্রেফতার করে।

জানা যায়, গত ২৮ মার্চ স্থানীয় তারাগঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ছিল মুক্তিযোদ্ধা জনতা মঞ্চের স্বাধীনতা দিবস গণসমাবেশে।এ সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা। সমাবেশ থেকে নৌকার মাঝি পাল্টানোর দাবি করা হয়।এ সমাবেশে চা বিক্রেতা বাদল শেক র‌্যাব সদৃশ্য পোশাক ও খেলনা একটি অস্ত্র নিয়ে সমাবেশে যায়।

সমাবেশ স্থলে তার সংগে সেলফি তুলে আনন্দ করে আরও কয়েক যুবক। এ ঘটনায় ৩১ মার্চ নালিতাবাড়ী থানার উপ পুলিশ পরিদর্শক নুর উদ্দিন বাদী হয়ে বাদল সহ তিন যুবকের নামে এবং কয়েকজনকে অজ্ঞাত নামা আসামী করে মামলা দায়ের করে।পওে পুলিশ রাতেই আলমগীর কবীর মিথুনকে তার তারাগঞ্জ উত্তর বাজার এলাকার ব্যবসী প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রেফতার করে শেরপুর আদালতে প্রেরণ করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপরিদর্শক(এসআই) নজরুল ইসলাম জানান, র‌্যাব সেজে সমাবেশে ভয়ভীতি প্রদর্শনের দায়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গ্রেফতার কৃত সহযোগি আসামী মিথুনকে ৫ দিনের পুলিশ রিমান্ড চেয়ে দুপুওে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।।

এ ব্যাপাওে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান কৃষিবিদ বদিউজ্জান বাদশার সংগে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে, তিনি বলেন,মহান স্বাধীনতা দিবস ও বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে অনেকেই যেমন খুশী তেমন সাজ নিয়ে অনুষ্ঠানে আসে। হয়তো ওই যুবকটিও র‌্যাবের সদৃশ্য কালো পোষাক নিয়ে আলাদা আনন্দ দিতে সমাবেশ স্থলে এসেছিল। তবে এই ঘটনার জন্য এটা প্রতিপক্ষের র্নিলজ্জ পক্ষপাতমূলক মামলা। এ ধরণের ঘটনায় আইনের অপব্যবহার সাধারণ মানুষের মাঝে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করবে। তিনি প্রতিপক্ষকে এ ধরণের কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার আহবান জানান।

প্রিন্স, ঢাকা