গুলেনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ তুরস্কের

নিউজ ডেস্ক: তুরস্কে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত হত্যার ঘটনায় ধর্মীয় নেতা ফেতুল্লাহ গুলেনসহ আটজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আঙ্কারা। সোমবার তুর্কি সংবাদমাধ্যম হাবারটার্ক এ তথ্য জানিয়েছে। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের তুরস্ক সফরের একদিন আগে এ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হলো।

মঙ্গলবার দুদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে তুরস্কে যাচ্ছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এসময় ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানিও উপস্থিত থাকবেন। যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া নিয়ে আলোচনার জন্যই তাদের এই বৈঠক।

২০১৬ সালের ডিসেম্বরে আঙ্কারায় একটি চিত্র প্রদর্শনী চলাকালে রাষ্ট্রদূত আন্দ্রেই কারলভকে এক পুলিশ সদস্য গুলি করে হত্যা করে। এসময় ওই কর্মকর্তা ‘আল্লাহ মহান’ এবং ‘আলেপ্পোকে ভুলে যাবেন না’ বলে চিৎকার করছিল। সিরিয়ায় রুশ সংশ্লিষ্টতার দিকে ইঙ্গিত করেই সে এই কথা বলছিল। ঘটনাস্থলেই ওই পুলিশ সদস্যকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

হাবারটার্ক জানিয়েছে, এ ঘটনায় আটজনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদের মধ্যে তিন পুলিশ সদস্যও রয়েছেন।

এরদোয়ান দাবি করেছেন, রুশ কূটনীতিক হত্যার পেছনে গুলেনের হাত রয়েছে। তবে গুলেন এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

১৯৯৯ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছা নির্বাসনে রয়েছেন গুলেন। ২০১৬ সালে তার বিরুদ্ধে এরদোয়ানকে উচ্ছেদে সেনা অভ্যুত্থানে মদদ দেওয়ারও অভিযোগ ওঠে। অবশ্য গুলেন এ অভিযোগও অস্বীকার করেছেন।