সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের ধর্মীয় উপশানালয়ে হামলার প্রতিবাদে নিন্দা প্রকাশ

স্টাফ রিপোর্টার: সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সভাপতি জিয়াউদ্দিন তারেক আলী, সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ এক বিবৃতিতে জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জে কতিপয় ধর্মান্ধগোষ্ঠী গতকাল ৩০ মার্চ ২০১৮ শুক্রবার পবিত্র জুম্মার নামাজের আদায়ের সময় মসজিদে হামলা চালিয়ে মসজিদের ইমাম সহ বেশ কয়েকজনকে আহত ও মসজিদে ভাংচুরের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, ইতোপূর্বে জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘু আহমদিয়া মুসলিম জামাতের মসজিদ ও বাড়িঘরে হামলা চালানো হয়েছে একই ধরণের হামলার হুমকী প্রদান করা হয়েছে ব্রহ্মনবাড়ীয়া জেলার নাসির নগর উপজেলা, রাঙ্গামাটি জেলার বাগাইছড়ি উপজেলায় আহমদিয়া মুসলিম জামাতের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও সম্পদের উপর হুমকী প্রদান করা হয়েছে। আমরা মনে করি এদেশটি একটি অসাম্প্রদায়িক ধারার স্বপ্নকে ধারন করে ধর্ম, বর্ণ-নির্বিশেষে দীর্ঘ লড়াই সংগ্রামের মধ্যেদিয়ে ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভ করে, আজকের প্রেক্ষাপটে কতিপয় চিহ্নিত উগ্রবাদীর ধর্মান্ধ শক্তি তাদের হীনস্বার্থ হাসিল করার মানসে বিভিন্ন সময়ে দেশের স্থিতিশীলতা, গণতন্ত্র ও অসামপ্রদায়িকতা বিনষ্ট করার হীন প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছে, তারা বিভিন্ন সময়ে ঠুনকো অজুহাতে সংখ্যালঘু, হিন্দু, আদিবাসী সহ সকল দুর্বল জনগোষ্ঠীর উপর অত্যাচার নিপীড়ন চালিয়ে তাদেরকে দেশত্যাগে বাধ্য করছে, তারা ধর্মীয় উর্ম্মাধনার নামে সংখ্যালঘুদের সম্পদ দখল করেছে, নরী-শিশু নির্যাতন করে বর্বরতায় মেতে উঠে সভ্যতা গহিত কাজ চালিয়ে মানবতা বিরোধী জঘন্য অপরাধে লিপ্ত হচ্ছে।

এই দেশ ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলের, দেশের সকল নাগরিকেরা যার যার ধর্ম চর্চা ও নাগরিক অধিকার নিয়ে নির্ভিগ্নে বেঁচে থাকতে পারে তার সাংগঠনিক স্বীকৃতি সকলের রয়েছে আমরা সরকার ও প্রশাসনের কাছে দাবি জানাচ্ছি আহমদিয়া মুসলিম জামাতসহ সকল সংখ্যালঘু ও দুর্বল জনগোষ্ঠীর উপর যে কোন ধরণের নিপীড়ন কঠোর হস্তে দমন করুন। দেশের স্থিতিশীলতা ও গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখুন।