বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ক্ষুদে ফুটবলার তৈরিতে অবদান রাখছে : রাষ্ট্রপতি

নিউজ ডেস্ক: রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট বাংলাদেশে ক্ষুদে ফুটবলার তৈরির ক্ষেত্রে অনন্য ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৭’ ও ‘বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৭’ উপলক্ষে আজ এক বাণীতে এ কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, শুধু রাজধানী নয়, জেলা, উপজেলা এমনকি গ্রাম পর্যায়েও এই টুর্নামেন্ট এখন আলোচনার শীর্ষে। দেশের প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ক্ষুদে খেলোয়াড়দের ফুটবল শৈলীতে একদিকে যেমন সবাই আমোদিত হচ্ছে তেমনি এর মাধ্যমে আগামী দিনের প্রতিভাবান ফুটবলার তৈরি হচ্ছে ।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের চিন্তা চেতনায় উদ্দীপ্ত বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৭’ ও ‘বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৭’ অনুষ্ঠিত হচ্ছে জেনে রাষ্ট্রপতি সন্তোষ প্রকাশ করেন। টুর্নামেন্ট ও স্মরণিকার সাথে সম্পৃক্ত সকলকে তিনি আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

আবদুল হামিদ বলেন, শিশুর শারীরিক, মানসিক, সামাজিক ও নৈতিক বিকাশ শুরু হয় প্রাথমিক শিক্ষাস্তরে। আর শিশুর সুস্থ বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে খেলাধুলা। এছাড়া খেলাধুলা শিশুদের মাঝে প্রতিযোগিতার মনোভাব এবং পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ ও দায়িত্ববোধ তৈরি করে।

তিনি বলেন, এই উপলব্ধি থেকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ২০১০ সাল থেকে স্বাধীনতার মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট’ এবং ২০১১ সাল থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রেরণাদাত্রী সহধর্মিণীর নামে ‘বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট’ প্রবর্তন করেছে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, এ টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণের মাধ্যমে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা জাতির পিতা এবং বঙ্গমাতার জীবন ও কর্ম সম্পর্কে আরো অবহিত হওয়ার সুযোগ পাবে এবং তাঁদের জীবনাদর্শ অনুসরণ করে সুনাগরিক হয়ে গড়ে উঠবে। তিনি এ টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী সকল ক্ষুদে খেলোয়াড়দের উত্তরোত্তর সাফল্য ও উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করেন।
তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শোষণ-বঞ্চনামুক্ত সুখী-সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নপূরণে দেশের তরুণ প্রজন্ম কার্যকর অবদান রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।