জাপানে গণহত্যা দিবস পালন

নিউজ ডেস্ক: জাপানের টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস যথাযথ মর্যাদায় ২৫ মার্চ ‘গণহত্যা দিবস’ পালন করেছে। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালোরাতে ঘুমন্ত, নিরস্ত্র ও নিরপরাধ বাঙ্গালির ওপর মানব ইতিহাসের জঘন্যতম ও নৃশংসতম হত্যাযজ্ঞ চালায় তৎকালীন পাকিস্তানি হানাদারবাহিনী। তাই ২৫ মার্চ কে ‘গণহত্যা দিবস’ হিসাবে পালন করা হয়।

২৫ মার্চ সকালে দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে মুক্তিযুদ্ধে সকল শহিদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। পরে শহিদদের আত্মার মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করে দোয়া করা হয়। এসময় দিবসটি উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়।

জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা ও প্রবাসী বাংলাদেশি নেতৃবৃন্দ আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। এ সময় রাষ্ট্রদূত বলেন, ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ বিশ্ব ইতিহাসে এক কলঙ্কময় অধ্যায়। তিনি বলেন, বাঙ্গালি জাতিকে পৃথিবী থেকে নিশ্চিহ্ন করার অভিপ্রায়ে পাকিস্তানি বর্বর হানাদারবাহিনী সেদিন যে পৈশাচিক নির্যাতন চালিয়েছিলো তা বাংলার মুক্তিকামী মানুষকে দমিয়ে রাখতে পারে নাই। বীরবাঙ্গালি ত্রিশলক্ষ মানুষের জীবনবিসর্জন ও দুইলক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে বিজয় ছিনিয়ে আনে। তাই আজ আমরা স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক।

দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা কর্মচারী ও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি এ সময় উপস্থিত ছিলেন।