সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের স্বাধীনতার জন্য যারা লড়াই করেছেন তাদের প্রতি সম্মানস্বরূপ মুক্তিযোদ্ধা, তাদের সন্তান ও নাতী-নাতনীদের জন্য সরকারি চাকরিতে বিদ্যমান কোটা ব্যবস্থা অব্যাহত থাকবে।

বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম উত্তর ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত পটিয়া সরকারি কলেজ ও আদর্শ স্কুল প্রাঙ্গণে এক জনসভায় এ কথা বলেন তিনি। খবর বাসসের

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধাদের বিশেষ সম্মান দিয়েছি। কারণ তাদের ত্যাগের বিনিময় আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। এটি ভুলে যাওয়া উচিত হবে না।’

শেখ হাসিনা বলেন, সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ও নাতী-নাতনীদের জন্য কোটা ব্যবস্থা করেছে। যদি কোটা পূরণ না হয়, তাহলে এই ব্যবস্থা নমনীয় করে অন্যদের চাকরি দেয়া যেতে পারে।

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা বিলোপ প্রসঙ্গে কতিপয় ছাত্র-ছাত্রীদের বিক্ষোভের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ মন্তব্য করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ স্বাধীন না হলে চাকরির সুযোগ সৃষ্টি হতো না। দেশের উন্নয়ন হতো না এবং কেউ উচ্চতর অবস্থানে যেতে পারতো না। আমাদের এ কথা ভুলে গেলে চলবে না।

এতে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুসলিম উদ্দিন আহমেদ।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, দলের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, চট্টগ্রামের মেয়র আজম নাসির উদ্দিন, স্থানীয় সংসদ সদস্য শামসুল হক চৌধুরী, উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপ দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহজাদা মহিউদ্দিন এবং প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান।