পরিচয় নিশ্চিতের পরই লাশ হস্তান্তর: নেপাল

নিউজ ডেস্ক:  কাঠমান্ডুতে বিমানর বিধ্বস্ত হয়ে নিহত বাংলাদেশিদের আলাদাভাবে পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পরই তাদের লাশ দেশে পাঠানো হবে।

বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় হোটেল ইয়াক ইয়েতিতে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামালের সঙ্গে বৈঠকের পর এ কথা জানিয়েছেন নেপালের সেনাপ্রধান জেনারেল রাজেন্দ্র ছেত্রী। তিনি বলেন, মরদেহগুলো শনাক্তের কাজ চলছে, তবে কতদিন সময় লাগবে তা এখনি বলা যাচ্ছে না।

আর বিমানমন্ত্রী জানান, সব ধরনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হলেই বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।
সূত্রে জানা গেছে, সাক্ষাতে মন্ত্রীকে দুর্ঘটনা ও দুর্ঘটনা পরবর্তী অবস্থা সম্পর্কে ব্রিফ করেন নেপালের সেনাপ্রধান। এছাড়া দুপুরে নেপালের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বিমানমন্ত্রী। এরপর বিমানবন্দরের দুর্ঘটনা স্থলে যাবেন তিনি।

দুর্ঘটনা পরবর্তী সার্বিক বিষয়ে খোঁজখবর ও করণীয় নির্ধারণে মঙ্গলবার বিমানের একটি ফ্লাইটে কাঠমান্ডু যান বিমানমন্ত্রী। তার সঙ্গে রয়েছেন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) পরিচালনা ও পরিকল্পনা সদস্য এয়ার কমোডর মোস্তাফিজুর রহমানসহ তিন জনের একটি টিম।

ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত বাংলাদেশের বেসরকারি বিমানসংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় ৫১ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। সোমবার নেপালের স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ২০ মিনিটে ৪ ক্রুসহ ৬৭ আরোহীবাহী বিমানটি বিধ্বস্ত হয়।