ময়মনসিংহ নতুন বিভাগীয় শহরসহ শতাধিক কাজের ভিত্তি ও উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী আগামী ৫ এপ্রিল


মো. নজরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ

কৃষিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়ারম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি বলেছেন, বিশ্ব দরবারে সমাদৃত নেত্রী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তার ধারাবাহিকতায় ময়মনসিংহ বিভাগেও ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়িত হচ্ছে। আগামী ৫ এপ্রিল ময়মসনসিংহ সফর করে সর্বাধুনিক পরিকল্পিত ময়মনসিংহ বিভাগীয় নতুন শহরের সর্বাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত পরিকল্পিত ময়মনসিংহ বিভাগীয় নতুন শহরের ভিত্তি স্থাপন, বিভাগীয় কমিশণার ও ডিআইজি অফিসসহ শতাধিক উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তার স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী। আওয়ামীলীগ আয়োজিত ওইদিন দুপুরে ঐতিহাসিক সার্কিট হাউজ মাঠে স্মরণকালের সর্ববৃহৎ মহাসমাবেশে মহাসবাবেশে ভাষন দেবেন দেশরতœ শেখ হাসিনা।
ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার জি.এম সালেহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৫এপ্রিল ময়মনসিংহের সফর সফলভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মঙ্গলবার এক প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। অনুষ্ঠানে বক্তাগণ আগামী ৫এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর সফরের পূর্বেই ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন ঘোষণা ও শহরের প্রাণকেন্দ্র থেকে দিগাকান্দায় রেললাইন স্থানান্তর এবং বিদ্যমান রেললাইনের জায়গা দিয়ে বিভাগীয় মহাসড়ক নির্মাণসহ গাজীপুর থেকে জামালপুর পর্যন্ত ডাবল ডুয়েলগেজ রেললাইন নির্মাণের ঘোষণা চান প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে। শহরের রেলপথ দিয়ে সড়ক পথের নাম বঙ্গবন্ধু সড়ক নামাকরণ এবং শহরের প্রধান সড়ক র‌্যালীর মোড়, স্টেশন রোড, নতুন বাজার হয়ে টাউনহ হলের মোড় পর্যন্ত সড়কটি শেখ হাসিনা সড়ক নামাকরণের প্রস্তাব করলে সভায় উপস্থিত সকলের এর সমর্থন করেন।
ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার জি.এম সালেহ উদ্দিন জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৫ এপ্রিল বিভিন্ন প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ও উদ্বোধনী ফলক উন্মোচন করবেন। তন্মধ্যে নতুন বিভাগীয় শহর গড়ে তোলার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ছাড়াও, বিভাগীয় কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি’র কার্যালয়, বিভাগীয় সার্কিট হাউজ, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, ময়মনসিংহ, বাংলাদেশের বৃহৎ ও আন্তর্জাতিকমানের বঙ্গবন্ধু নভো থিয়েটার, ব্রহ্মপূত্র নদের ওপারে নতুন শহর রক্ষাবাধ, বিভাগীয় স্টেডিয়াম, শহরের কেওয়াটখালি, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কাছে জিরো পয়েন্টে এবং খাগডহরসহ ব্রহ্মপূত্র নদের উপর ৩টি সেতু নির্মাণের ভিত্তি স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়াও ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোণা জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের শতাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি স্থাপন করবেন।
প্রস্তুতি সমন্বয় সভায় সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডাঃ এম আমান উল্লাহ, আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন, শরীফ আহমেদ ও ফাতেমা জহুরা রাণী, ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ময়মনসিংহের প্রধান প্রকৌশলী মৃনাল কান্তি সেন, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর ময়মনসিংহ জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মনিরুল ইসলামসহ বিভাগীয় পর্যায়ের কর্মকর্তাগন, ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, জামালপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ চৌধুরী, শেরপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির রুমান, নেত্রকাণা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়, ৪ জেলা প্রশাসক যথাক্রমে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস, জামালপুর জেলা প্রশাসক আহমেদ কবির, শেরপুর জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন, নেত্রকোণা জেলা প্রশাসক মইন উল ইসলাম, ময়মনসিংহ পুলিশ সুপার সৈয়দ নূরুল ইসলাম, নেত্রকোণা পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধৈুরী, জামালপুর পুলিশ সুপার দেলোয়ার হোসেন, শেরপুর পুলিশ সুপার রফিকুল হাসান গনি, ময়মনসিংহ পৌর মেয়র ইকরামূল হক টিটু, মমসনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডিাস্ট্রির সভাপতি আমিনুল হক শামীম (সিআইপি), ময়মনসিংহ জেলা অওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি এহতেশামূল আলম ও সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহামন শান্তসহ চার জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পদাক, জেলা নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নূরুল আমিন কালাম, উপজেলা চেয়ারম্যানসহ জনপ্রতিনিধি, রাজণৈতিক নেতৃবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা, নাগরিক নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহন করেন।