আইফোন টেন কেন কিনছেন না?

নিউজ ডেস্ক: অ্যাপল-ভক্তরা নিশ্চয়ই আইফোন টেন সম্পর্কে খোঁজখবর রাখেন। কিন্তু অনেকেই আইফোন টেন কেনেননি। মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল ভেবেছিল, নতুন আইফোন নিয়ে খুব বেশি সাড়া পাবে তারা। কিন্তু আইফোন টেনে আগ্রহ কম। এর কারণ কী? আইফোন-ভক্তরা বলছেন, আইফোন টেনের দাম বেশি। এর দাম এত বেশি যে পুরোনো আইফোন বাদ দিয়ে আইফোন টেনে তাঁরা যেতে চান না। যুক্তরাষ্ট্রের সম্পদ ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান পাইপার জাফরির শীর্ষ পর্যায়ের এক বিশ্লেষক এ তথ্য জানান।

পাইপার জাফরির বিশ্লেষক মাইকেল ওলসনের বরাতে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট পিইডিথ্রিজিরো জানিয়েছে, যাঁরা নতুন আইফোন হালানাগাদ করেননি। তাঁদের ৪৪ শতাংশের মত হচ্ছে, বর্তমান আইফোন খুব ভালোভাবে কাজ করছে। ফরচুন অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

পাইপার জাফরির জরিপে দেখা গেছে, এক-তৃতীয়াংশ আইফোন ব্যবহারকারী বলেছেন, ৯৯৯ মার্কিন ডলার দামের আইফোনটির দাম মাত্রাতিরিক্ত। ৮ শতাংশের মতো হচ্ছে আইফোন টেনের স্ক্রিন বড় হলে তাঁরা বিবেচনা করতেন।

১ হাজার ৫০০ আইফোন ব্যবহারকারীকে নিয়ে এ জরিপ করা হয়।

বর্তমানে আইফোন টেন নিয়ে অনেকের আগ্রহ থাকলেও অ্যাপল এর উৎপাদন কমিয়ে দিচ্ছে গুঞ্জন উঠেছে। কারণ, যে রকম চাহিদা থাকবে বলে তারা আশা করেছিল, আইফোন টেনের চাহিদা সে তুলনায় কমেছে।

বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান কেজিআই সিকিউরিটিজের বিশ্লেষক মিং-সি কুয়ো গত মাসে জানিয়েছিলেন, এ বছরের মাঝামাঝি সময়ে আইফোন টেন উৎপাদন কমাবে অ্যাপল। এ ছাড়া চলতি বছর নতুন তিনটি মডেলের আইফোন আনবে প্রতিষ্ঠানটি। এর মধ্যে একটি মডেল অন্যগুলোর চেয়ে বেশি জনপ্রিয় হবে।

গত ১২ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় এক জমকালো অনুষ্ঠানে আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসের পাশাপাশি আইফোন ১০-এর (আইফোন এক্স) ঘোষণা দেয় মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপল। এর বিশেষ ফিচার রেটিনা এইচডি ডিসপ্লে, এ-১১ বায়োনিক চিপ, ডুয়েল ক্যামেরা, ফেস আইডি। আইফোনের ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বাজারে ছাড়া ফোনটি তৈরিতে স্টেইনলেস স্টিল ও গ্লাসের সমন্বয় করা হয়েছে।