শ্রীলংকায় জরুরি অবস্থা জারি

নিউজ ডেস্ক:  বৌদ্ধ ও মুসলমানদের মধ্যে দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় শ্রীলংকায় ১০ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

সরকারের এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, শ্রীলংকার মধ্যাঞ্চলীয় জেলা ক্যান্ডিতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার পর মঙ্গলবার জরুরি অবস্থা জারির এ সিদ্ধান্ত হয়।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সংখ্যাগুরু সিংহলী বৌদ্ধরা মুসলমানদের মালিকানাধীন দোকানপাটে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের পর ক্যান্ডি শহরের কিছু কিছু এলাকায় কারফিউ জারি করা হয়েছে। আগুনে পুড়ে যাওয়া একটি বাড়ির পাশে মুসলিম এক তরুণের মরদেহ উদ্ধারের পর সেখানে উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়।

মঙ্গলবার মন্ত্রিসভার এক বৈঠকের পর জানানো হয়েছে, পরিস্থিতি বিবেচনা করে ১০ দিনের জন্যে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

এছাড়া ফেসবুকের মতো সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যারা এ ধরনের সহিংসতায় উস্কানি দেবে তাদের বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের কথা সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

সপ্তাহ খানেক আগে গাড়ি নিয়ে বিরোধের জেরে মুসলমানরা বৌদ্ধ এক তরুণকে পিটিয়ে হত্যা করেছে—এরকম একটি অভিযোগের পর সেখানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এরপর আমপারে শহরে মুসলমানদের মালিকানাধীন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলা চালানো হয়।

২০১২ সালের পর থেকে শ্রীলংকায় উত্তেজনা বাড়তে থাকে। কট্টরপন্থি একটি বৌদ্ধ গ্রুপ বিবিএসের বিরুদ্ধে উত্তেজনায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।