শ্রীদেবী আর নেই

নিউজ ডেস্ক: ভারতীয় চলচ্চিত্রের সুপারস্টার অভিনেত্রী শ্রীদেবী আর নেই।

শনিবার দুবাইয়ে পারিবারিক একটি বিশেষ অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার সময় রাত সাড়ে ১১টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান বলে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। তার বয়স হয়েছিল ৫৪ বছর।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ভাগ্নে অভিনেতা মোহিত মারওয়াহর বিয়ে অনুষ্ঠানে যোগ দিতেই দুবাই গিয়েছিলেন শ্রীদেবী। মৃত্যুর সময় স্বামী বনি কাপুর ও মেয়ে খুশী তার সঙ্গেই ছিলেন।

শ্রীদেবীকে মনে করা হয় বলিউডের প্রথম নারী সুপারস্টার, যিনি নায়কের ওপর নির্ভর না করে নিজেই ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিতে পারতেন। তার মৃত্যুতে বলিউডে শোকের ছাড়া নেমে এসেছে।

মাত্র চার বছর বয়সে অভিনয় শুরু করা শ্রীদেবী তামিল, তেলেগু, মালায়লাম, কান্নাডা ও হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। শিশু শিল্পী হিসেবে ১৯৭৫ সালে ‘জুলি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে বলিউডে আত্মপ্রকাশ শ্রীদেবীর। তবে বলিউডে পরিপূর্ণ অভিনেত্রী হিসেবে তার পথচলা শুরু ‘সলভা সাওয়ান’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে, ১৯৭৮ সালে।

১৯৮৩ সালে ‘হিম্মতওয়ালা’ ছবির মধ্য দিয়ে তিনি ব্যাপক নজর কাড়েন এবং এরপরই বলিউডে নায়িকা হিসেবে তার শক্ত আসন তৈরি হয়। ১৯৬৭ সালে অভিনয় জীবন শুরু করা শ্রীদেবী ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত একটানা অভিনয় করেন। এরপর ১৫ বছরের বিরতি। ২০১২ সালে ‘ইংলিশ ভিংলিশ’ চলচ্চিত্র দিয়ে ফের অভিনয়ে ফিরেছিলেন শ্রীদেবী। তার অভিনীত সর্বশেষ ছবি ‘মম’ মুক্তি পায় গত বছরের জুলাইয়ে।

বর্ণাঢ্য অভিনয় জীবনে শ্রীদেবী পাঁচবার ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড জেতেন। এছাড়া এই অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনয়ন পান ১০ বার। ফিল্মফেয়ার ছাড়াও জি সিনে অ্যাওয়ার্ড, বিগ স্টার এন্টারটেইনমেন্ট অ্যাওয়ার্ড, তামিল নাড়ু স্টেট ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড, স্টারডাস্ট অ্যাওয়ার্ডসহ অসংখ্যা পুরস্কার ও সম্মাননায় ভূষিত হন তিনি। ২০১৩ সালে ভারত সরকার তাকে পদ্মশ্রী সম্মাননায় ভূষিত করে।

ব্যক্তিগত জীবনে ১৯৮৫ সালে প্রথম বিয়ে করেছিলেন শ্রীদেবী। বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর সঙ্গে তার সেই বিয়েটি অবশ্য বেশিদিন টেকেনি। মাত্র তিন বছর পর ১৯৮৮ সালেই ছাড়াছাড়ি হয়ে যায় তাদের মধ্যে। এরপর ১৯৯৬ সালে বলিউডের চলচ্চিত্র প্রযোজক বনি কাপুরকে বিয়ে করেন শ্রীদেবী। জানভি কাপুর ও খুশি কাপুর নামে দুই মেয়ে রয়েছে তার।