যেসব ছবির কারণে তিনি আজ শ্রীদেবী

শনিবার রাতে দুবাইয়ে একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বলিউডের কিংবদন্তি অভিনেত্রী শ্রীদেবী। গুণী এই নায়িকাকে মনে করা হয় বলিউডের প্রথম নারী সুপারস্টার, যিনি নায়কের ওপর নির্ভর না করে নিজেই ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিতে পারতেন। ঢাকা নিউজ24.কম অনলাইনের পাঠকদের জন্য শ্রীদেবী অভিনীত সেরা কয়েকটি ছবি নিয়ে এই আয়োজন-

ইংলিশ ভিংলিশ (২০১২): বিয়ের পর নায়িকারা সিনেমায় খুব একটা সফলতা পান না বলে প্রচলিত মিথ আছে। এই কথাকে মিথ্যা প্রমাণ করেছেন শ্রীদেবী। ২০১২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত গৌরী শিন্ডের ‘ইংলিশ ভিংলিশ’ ছবিতে ‘শশী’ চরিত্রে শ্রীদেবীর অভিনয় দর্শক-ভক্তদের আবারও নতুন করে চিনিয়েছে গুণী এ নায়িকাকে। ছবিটি বক্স অফিসে দারুণ সাফল্য পায়।

সদমা (১৯৮৩): ত্যাগ রাজনের প্রযোজনায় ও বালু মাহেন্দ্রর পরিচালনায় ১৯৮৩ সালে মুক্তি পায় ‘সদমা’। এ ছবিতে শৈশবে স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলা এক মেয়ের চরিত্রে দেখা যায় শ্রীদেবীকে।ছবিটি বলিউডে ক্ল্যাসিকের তকমা পায়।

নাগিনা (১৯৮৬): এ ছবিতে ইচ্ছাধারী এক নাগিনের চরিত্রে অভিনয় করেন শ্রীদেবী। ওই চরিত্রে তার অসাধারণ অভিনয় মুগ্ধ করেছিল দর্শকদের। ছবিতে অমরেশ পুরীর বীণের তালে তালে শ্রীদেবীর নাচে ‘ম্যায় তেরা দুশমন’ গানটি এখনও লোকের মুখে মুখে ফেরে।

মিস্টার ইন্ডিয়া (১৯৮৭): আশির দশকে বক্স অফিস কাঁপানো ছবি ‘মিস্টার ইন্ডিয়া’। সেই সময়ে শেখর কাপুর পরিচালিত এ ছবির কাহিনির অভিনবত্ব প্রশংসিত হয়েছিল।

চালবাজ (১৯৮৯): পঙ্কজ পরাশর পরিচালিত ‘চালবাজ’ ছবিটি মুক্তি পায় ১৯৮৯ সালে। ছবিতে ‘অঞ্জু’ ও ‘মঞ্জু’ নামে যমজ বোনের চরিত্রে অভিনয় করেন শ্রীদেবী। একই সঙ্গে দু’টি ভিন্ন চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় নৈপুণ্য তাকে খ্যাতির চূড়ায় নিয়ে যায়।

খুদা গাওয়া (১৯৯২): অমিতাভ বচ্চন ও শ্রীদেবী অভিনীত ‘খুদা গাওয়া’ মুক্তি পায় ১৯৯২ সালে। নাজির আহমদ ও মনোজ দেশাইয়ের এ ছবিটি সে সময় বক্স অফিসে দারুণ সাড়া জাগিয়েছিল।

লামহে (১৯৯১): ‘লামহে’ ছবিতে পর্দায় শ্রীদেবী ও অনিল কাপুরের  রোম্যান্স দর্শকরা দারুণভাবে উপভোগ করেছিলেন। এ ছবিতে শ্রীদেবীর বিপরীতে অভিনয় করার জন্য তার স্বামী বনি কাপুরকে প্রস্তাব দিয়েছিলেন যশ চোপড়া। 

জুদাই (১৯৯৭): রাজ কানওয়ারের ‘জুদাই’ ছবিতে এক লোভী গৃহবধূর চরিত্রে শ্রীদেবীর অভিনয় দারুণ প্রশংসিত হয়েছিল।