পাকিস্তান ও চীনের মদদে বাংলাদেশিরা ভারতে ঢুকছে -ভারতীয় সেনাপ্রধান

অনলাইন ডেস্ক : ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশ থেকে লোক ঢোকানো হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত। তার অভিযোগ, এর পেছনে রয়েছে পাকিস্তান। চীনের মদদে একটি ছায়াযুদ্ধের অংশ হিসেবে ভারতের ওই এলাকাকে ‘অস্থির’ করে তুলতেই এ কাজ করা হচ্ছে।
এনডিটিভির খবরে বলা হয়, ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্ত এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার বিষয়ে আয়োজিত এক সেমিনারে গত বুধবার ভারতীয় সেনাপ্রধান এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আমাদের পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রতিবেশী পরিকল্পিতভাবে অভিবাসন প্রক্রিয়া চালাচ্ছে। তারা সব সময় ওই এলাকা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার চেষ্টায় ছায়াযুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে।
ভারতের পশ্চিমে পাকিস্তানের অবস্থান। অন্যদিকে দেশটির উত্তর সীমান্তে চীনের অবস্থান। জেনারেল বিপিন রাওয়াত বলেন, আমি মনে করি, আমাদের পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রতিবেশী ছায়াযুদ্ধে ভালোভাবে ভূমিকা রেখে চলেছে। আমাদের উত্তরাঞ্চলীয় সীমান্তের প্রতিবেশী (চীন) এতে মদদ দিচ্ছে এবং তারা চায় এই এলাকা যেন অস্থির থাকে। আমরা এর পরও কিছু অভিবাসন ঘটতে দেখব। এ সমস্যা চিহ্নিত করা ও সার্বিক পর্যবেক্ষণের মধ্যেই এর সমাধান আছে।
সেমিনারে আসামের স্থানীয় একটি রাজনৈতিক দল নিয়েও মন্তব্য করেছেন জেনারেল বিপিন রাওয়াত। ওই দলটির নাম অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (এআইইউডিএফ)। দলটির প্রধান নেতা বদরুদ্দিন আজমল এবং দলটির প্রতি স্থানীয় মুসলমানদের সমর্থন বেশি।
বিপিন রাওয়াত বলেছেন, ‘আসামে এআইইউডিএফ নামের একটি দল আছে। আপনারা দেখবেন, এটি ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) চেয়েও দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। ১৯৮৪ সালে বিজেপি এখানে মাত্র দুটি আসনে জয়ী হয়েছিল। এআইইউডিএফ তার চেয়েও দ্রুত এগোচ্ছে।
জেনারেল বিপিন রাওয়াত বলেন, আসামের ৯টি জেলায় মুসলমানদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা বেড়েছে। আগে পাঁচটি জেলায় মুসলমানদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা পরিলক্ষিত হয়েছিল।