ইউপি নির্বাচনে অনিয়ম অভিযোগে তদন্ত

কুমিল্লা প্রতিনিধি: কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার ৮ ইউপি নির্বাচনে অনিয়মের নানান তথ্য চিত্র নিয়ে মিডিয়ায় প্রকাশিত সংবাদের প্রেক্ষিতে তদন্ত করলেন ইসির গঠিত তদন্ত কমিটি। সোমবার সকাল থেকে বিকের ৩টা পর্যন্ত এ তদন্ত করেন ইসির জনবল ও ব্যবস্থাপনা উপসচিব মো: সাবেকুর রহমান। এসময় তিনি সাংবাদিক, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী, সংশ্লিষ্ট প্রিসাইডিং ও পুলিং অফিসারদের সাথে কথা বলেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, গত ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ৮ ইউপির নির্বাচনে অনিয়ম, কেন্দ্র দখল, ব্যালট পেপারে আগাম সীল, অস্ত্র প্রদর্শণ, কেন্দ্রে কেন্দ্রে বহিরাগতদের অবস্থান ও জাল ভোট প্রদানের অভিযোগে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরের আলোকে নির্বাচন কমিশন থেকে ইসির জনবল ও ব্যবস্থাপনা উপসচিব মো: সাবেকুর রহমানকে প্রধান করে ১ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

ওই তদন্ত কমিটি সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলা নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে আসেন এবং তদন্ত শেষে বিকেল সাড়ে ৩ টা পর্যন্ত তদন্ত কাজ চালান। এরপর ঢাকায় ফিরে যান।

এসময় উপস্থিত ৮ ইউপির বিএনপি সমর্থিত ও স্বতন্ত্র প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীগণ সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর সঠিক জানিয়ে ব্যালট পেপারে আগাম সীল ও কেন্দ্র দখলসহ নানা অনিয়মের তথ্য চিত্র তুলে ধরেন। তাঁরা তদন্ত কমিটিকে জানান, এসব প্রার্থীদের কেউ কেউ নিজের ভোটই দিতে পারেন নাই। তিনি সংশ্লিষ্টদের বক্তব্য শুনে রেকর্ড করেন ও লিখিত আকারে নেন। এসময় সেখানে উপস্থিত বেশ কয়েকজন সাংবাদিকের বক্তব্যও রেকর্ড করেন তদন্ত কমিটি।

নাঙ্গলকোট উপজেলা নির্বাচন কমিশন কর্মকর্তা মো. আবদুস সালাম জানান, যেহেতু এ বিষয়ে তদন্ত চলমান রয়েছে, সেহেতু কোন মন্তব্য করা সম্ভব নয়। তদন্ত শেষে আপনাদের জানানো হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইসির জনবল ও ব্যবস্থাপনা উপসচিব এবং তদন্ত কমিটি প্রধান মো: সাবেকুর রহমান বলেন, আমি তদন্ত করতে এখানে এসেছি। আপনাকে কোন মতামত দিতে আসিনি।
উল্লেখ্য, গত ২৮ ডিসেম্বর নাঙ্গলকোট উপজেলার ৮ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

ভোট গ্রহণকালীন ব্যাপক অনিয়ম কারচুপির সংবাদ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর নির্বাচন কমিশন সচিবালয় (ইসি) জনবল ও ব্যবস্থাপনা উপসচিব মো: সাবেদুর রহমানকে প্রধান করে ১ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

প্রিন্স, ঢাকা