ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ১৪৪ ধারা জারি

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: নবগঠিত উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সংবর্ধনা নিয়ে, বর্তমান কমিটির আহবায়ক ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানের ছোট ভাই মো:আবুল খায়ের এবং সাবেক যুবলীগের সভাপতি মো:মতিউর রহমান মতির অনুসারীদের মধ্যে চলে দফাই-দফাই ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া। রবিবার ২৮ শে জানুয়ারি, উভয় পহ্মই দেশীয় অস্ত্র-সস্রে সজ্জিত হয়ে উপজেলা সদরে শোডাউন দিতে দেখা যায়।

স্থানীয় নির্ভর যোগ্য একাধিক সূত্র থেকে জানা যায় যে, গত ২২শে জানুয়ারি, জেলা যুবলীগে নেতারা মো: আবুল খায়েরকে আহবায়ক করে ৩৩ সদস্য বিশিষ্ট্য উপজেলা যুবলীগের কমিটি ঘোষনা করেন। নবগঠিত এ কমিটিতে সাবেক সভাপতি মতিউর রহমান মতিকে ১নং সদস্য করেন। এরপর থেকেই উভয় গ্রুপের অনুসারীদের মাঝে মনো-মালিণ্য দেখা দেয়।

নবগঠিত যুবলীগের এই কমিটিকে রবিবার ২৮শে জানুয়ারি সকাল ১০:৩০ মিনিটে সংবর্ধনা দেওয়ার আয়োজন করা হয়।সংবর্ধনা দেওয়ার আগেই সাবেক সভাপতি গ্রুপের অনুসারীরা মঞ্চটি ভাংচুর চালাই ফলে উভয় গ্রুপের মধ্যে শুরু হয় সংঘর্ষ।

এতে উভয় গ্রুপের কয়েক জন গুরুত আহত হয়ে স্থানীয় উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি হন। সংঘর্ষে স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক ভয়-ভীতি সৃষ্টি হয়, এবং জনগনের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এ সময় পুরো উপজেলা সদরে রণহ্মেত্র সৃষ্টি হয়। আতঙ্ক কাটিয়ে রক্তহ্ময়ী সংঘর্ষ এড়াত স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন (ইউএনও) এলিশ শরমিন, দুপুর ১২টার সময়ে উপজেলা সদরে অনির্দিষ্টকালের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করেন। এ ব্যপারে ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো:বদরুল আলম (ওসি) জানান ফাঁকা গুলি এবং টিয়ারশ্যাল নিহ্মেপের মাধ্যমে আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সহ্মম হয়েছি। বর্তমানে সার্বিক পরিবেশ- পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রনে, এছাড়া বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় অতিরিক্ত পুলিশ নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

প্রিন্স, ঢাকা