ছাত্রদল-ছাত্র ইউনিয়ন, ফেসবুকে মিথ্যা ছবি ভাইরাল

নিউজ ডেস্ক:  সম্প্রতি সাত কলেজের অধিভুক্ত বাতিলের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে। নির্বাচনের বছরে সাধারন শিক্ষার্থীদের ব্যানারে বামদল, ছাত্রদল ও ছাত্র শিবিরের নেতা-কর্মীরা একসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়কে আস্থিতিশীল করতে চায় বলে বারবার অভিযোগ করেছে ছাত্রলীগ।

আর তাদের এই দাবির স্বপক্ষে রবিবার একটি ছবি ফেসবুকের মাধ্যমে সামনে নিয়ে এসেছে ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ। সে ছবিতে দেখা যায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান (লাল গেঞ্জি পরিহিত), ছাত্রদলের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক সর্দার আমিরুল ইসলাম সাগর,ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দী, ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যলয়ের সভাপতি তুহিন কান্তি একটি নৈশ্যভোজে আলোচনা করছেন।

ছবিটি নিয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগ সভাপতি সোহাগ সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কতিপয় বাম সংগঠনের আন্দোলনের নামে ষড়যন্ত্র গুলোর আসল চিত্রই এটি। আমরা ভুল করিনা, ছাত্রলীগ ভুল করে না।’

তবে ভিন্ন কথা বলছেন ছাত্রদল সভাপতি রাজীব আহসান। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘গত নভেম্বর থেকে মিথ্যা মামলায় জেলে আছেন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান মিন্টু। প্রায় তিন মাস জেলে আটক থাকা অবস্থায় এখন ছবিটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এটি আসলে সুষ্ঠু গণতান্ত্রিক মুভমেন্টকে ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করার চক্রান্ত। ক্যাম্পাসে যারা রাজনীতি করেন তারা একে অপরের ভাই। একটেবিলে বসে সবাই সবার সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখবে এটাই স্বভাবিক। কেউ যদি এর ভিন্ন অর্থ করে তবে সেটা তাদের বিষয়।

এ সময় সাধারণ ছাত্রদের আন্দোলনের সঙ্গে নিজেদের একাত্বতা প্রকাশ করার কথা জানান ছাত্রদল সভাপতি।

উল্লেখ্য, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান বর্তমানে জেলে রয়েছেন। তার রাজনৈতিক জীবনে প্রথমবারের মতো তিনি জেল খাটছেন। জেলে যাওয়ার আগেই ছাত্রদলের এ শীর্ষ নেতা ছাত্র ইউনিয়নের দুই শীর্ষ নেতার সঙ্গে গোপনে এ বৈঠক করেছিলেন।