গরীব মানুষের ন্যায় বিচার প্রাপ্তিতে গ্রাম আদালতের কোন বিকল্প নেই

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ও উপ-পরিচালক (স্থানীয় সরকার মোহা. নায়েব আলী বলেছেন, বর্তমান সরকার উন্নয়ন সূচকে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, স্বাস্থ্যসহ সকল বিষয়ে অগ্রগতির মাত্রা লক্ষণীয় হলেও আইনের শাসন বা সুবিচার নিশ্চিত করার বিষয়ে এখনও আমাদের অনেক দূর যেতে হবে। এজন্য ইউনিয়ন পরিষদ তথা গ্রাম আদালতের ভূমিকা অনেক বেশি। ছোট খাটো বিরোধের নিস্পত্তি করতে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর মামলার খরচ, সময় ও জটিলতা সবই পোহাতে হয়। গ্রাম আদালত যদি বিষয়সমূহ ইউনিয়ন পর্যায়ে নিম্পত্তি করতে পারে তাহলে জনগণ অনেক দিক থেকে রেহাই পাবে। গরিব ও সাধারণ মানুষের ন্যায় বিচার প্রাপ্তিতে গ্রাম আদালতের কোন বিকল্প নেই।

গ্রাম আদালতকে কার্যকর করতে বিশেষকরে মামলার নথিপত্র সৃজণ ও সংরক্ষণ করার ক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদের সচিব ও গ্রাম আদালত সহকারীরা ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারেন। চট্টগ্রাম নগরীর স্টেশন রোডস্থ এশিয়ান এস.আর হোটেলে আয়োজিত স›দ্বীপ উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন পরিষদের সচিব ও গ্রাম আদালত সহকারীদের ৫দিন ব্যাপি গ্রাম আদালত বিষয়ক প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এই প্রশিক্ষণ থেকে হাতে কলমে শেখার সুযোগ আছে। বিচারিক কাজের সাথে সম্পৃক্তদের সততার বিষয়টি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। উন্নত দেশের সমৃদ্ধির পেছনে কঠোর পরিশ্রম, দেশপ্রেম, সততা বিশেষ ভুমিকা রাখে। যার দৃষ্টান্ত হচ্ছে চীন, জাপান, মালেশিয়াসহ প্রভৃতি দেশ। এ প্রশিক্ষণের সকল ফ্যাসিলিটেটর, গেস্ট স্পিকারগণ যথেষ্ট অভিজ্ঞ এবং দক্ষ যা আপনাদের জন্য যথেষ্ট শিখন সহায়ক হবে বলে প্রত্যাশা করছি। সন্দ্বীপ উপজেলায় অনেক কিছু করার সুযোগ আছে। প্রশিক্ষণে সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমে নিজেদের জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধির পাশাপাশি প্রশিক্ষণ শেষে অর্জিত জ্ঞান কাজে লাগিয়ে নিজের অর্পিত দায়িত্ব যথাযথ পালন করলে আর কোন সমস্যা থাকার কথা নয়।

গণ প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও ইউএনডিপি বাংলাদেশের আর্থিক সহায়তায় এবং স্থানীয় সরকার বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়িত বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (পর্যায়-২) প্রকল্পের আওতায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন এ প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করেন। প্রশিক্ষণ কোর্সে অন্যান্যদের মধ্যে রিসোর্স পারসন হিসাবে সেশন পরিচালনা করেন জেলা লিগ্যাল এইড কর্মকর্তা ফারহানা ইয়াসমিন, বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের ডিস্ট্রিক্ট ফ্যাসিলিটেটর উজ্জল কুমার দাস চৌধুরী ও ব্লাস্টের জেলা সমন্বয়কারী মোহাম্মদ সাজেদুল আনোয়ার ভূইয়া। প্রশিক্ষণে সন্দ্বীপ উপজেলার ১০ জন ইউয়িন পরিষদ সচিব ও ১০ জন গ্রাম আদালত সহকারী অংশগ্রহণ করেন।

প্রিন্স, ঢাকা