ঘন কুয়াশায় পান ক্ষেত্রের ব্যাপক ক্ষতি

হিলি প্রতিনিধি: দিনাজপুরের হিলি হাকিমপুর উপজেলায় গত কয়েক দিন যাবৎ এক টানা ঘন কুয়াশা ও অধিক শীতের জন্য ঠান্ডাজনিত কারণে এলাকার চাষীদের পান বরজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গোড়াপঁচা রোগ, পান পাতায় কালোদাগ পড়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন পানচাষীরা। পানচাষীরা ঔষুধ প্রয়োগ করেও তেমন কোন সুফল পাচ্ছে না।

পান বরজে রোগ বালাই দেখা দেওয়ায় অনেক পানচাষী বরজ ভেঙ্গে অন্য ফসল আবাদের চিন্তা করছেন। এতে বিপুল পরিমান আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছেন পানচাষীরা।সরেজমিনে গিয়ে ঘাসুরিয়া গ্রামের পানচাষী মোফাজ্জল হোসেন জানতে চাইলে তিঁনি বলেন, প্রতি বিঘা পান বরজ তৈরী করতে প্রায় ৭০-৮০ হাজার টাকা খরচ হয়।

বর্তমানে বাজারে প্রতি পোয়া ( ১৬ বিরা) পান ২ হাজার থেকে ২৫শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তিঁনি আরো বলেন ফলন এবছর ভালোই হয়েছিল যদি পান বরজে রোগ বালাই না হত দেড় লাখ টাকার পান বিক্রি করতাম। খরচ পুশিয়ে লাভও করতাম কিন্ত রোগ বালাইয়ের কারণে ক্ষতির সম্মুখিন হতে হচ্ছে। নয়নগর গ্রামের পানচাষী রকিব উদ্দিন বলেন, প্রায় দুই যুগ ধরে পান চাষ করছি। কোন বছর এমন ক্ষতির মুখে পড়িনি। ঠান্ডার কারণে বরজের অবস্থা খুব খারাপ।

পান পাতায় কালো দাগ ও পচন ধরায় ক্রেতারা পান নিতে চাচ্ছেন না।হাকিমপুর উপজেলা কৃষি অফিসার শামীমা নাজনীজ জানান, উপজেলায় ২৮ হেক্টর জমিতে পান চাষ হয়েছে। শীত জনিত কারণে পান বরজগুলোর এই অবস্থা। পান বরজের বেড়াগুলো ভাল ভাবে বেঁধে দিতে হবে। যাতে বাতাস প্রবেশ করতে না পারে। পাশাপাশি পানচাষীদের জীবানু নাশক (বায়ো ফাটিলাইজার) সার ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

প্রিন্স, ঢাকা