দুঃসময়-দুর্দিনে মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রামবাসীকে ঐক্যবদ্ধ করেছেন: কাদের

নিউজ ডেস্ক: সদ্য প্রয়াত মহিউদ্দিন চৌধুরীর অবর্তমানে দলের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে বলেছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘নেত্রী আপনাদের ঐক্য চান। আপনারা মহিউদ্দিন চৌধুরীকে যদি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে চান, তাহলে চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে। দলের দুঃসময়-দুর্দিনে মহিউদ্দিন চৌধুরী যেমন চট্টগ্রামবাসীকে ঐক্যবদ্ধ করতেন, তেমনি শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর দুর্ভেদ্য ঘাঁটি চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের এমন ঐক্যবদ্ধ অগ্রযাত্রা প্রত্যাশা করেছেন।’

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি চট্টল বীর এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী স্মরণে চট্টগ্রাম উত্তর, দক্ষিণ ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রোববার বিকেলে নগরীর লালদীঘি ময়দানে এ শোক সভার আয়োজন করা হয়। এতে নগরী ও জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আওয়ামী লীগ এবং বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুল নেতাকর্মী মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছবি সংবলিত ব্যানার-পোস্টার নিয়ে অংশ নেন।

নেতাকর্মীদের হাত উঠিয়ে ঐক্যবদ্ধ থাকার প্রতিশ্রুতি আদায় করে শোক সভায় ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি নেতাকর্মীদের কাছে একটি কথাই বলব। নেত্রীকে যখন বলেছি আমরা চট্টগ্রামে মহিউদ্দিন ভাইয়ের স্মরণসভায় এসেছি, তখন তিনি আমাকে বলেছেন, চট্টগ্রামে গিয়ে নেতাকর্মীদের শুধু একটা কথাই বলবে। মহিউদ্দিন চৌধুরীর অবর্তমানে আমি চট্টগ্রামে ঐক্য চাই। কোনোভাবে যেন অনৈক্য দেখা না দেয়।’

আওয়ামী লীগ যদি ঐক্যবদ্ধ থাকে তাহলে কোনো শক্তি চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগের বিজয় ঠেকাতে পারবে না বলে উল্লেখ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা ওবায়দুল কাদের।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং দক্ষিণ জেলার সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপদপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ূয়া।

আরও বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সাংসদ ডা. আফছারুল আমীন, এবিএম ফজলে করিম, দিদারুল আলম, ওয়াশিকা আয়েশা খান, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ ছালাম, নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, খোরশেদ আলম সুজন প্রমুখ।