তিনদিন পর সজিবের মরদেহ উদ্ধার, মহাসড়ক অবরোধ

ত্রিশাল প্রতিনিধি: শুক্রবার বিকেলে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে শুকনি বিলে ঝাপ দেয় সজিব আহমেদ (১৮) নামে এক যুবক। ওই বিলে দুইদিন খোঁজার পর গতকাল রোববার দুপুরে কচুরিপনার নিচ থেকে সজিবের মরদেহ উদ্ধার করে স্থানীয় এলাকাবাসি। প্রশাসনের কোন উদ্ধার তৎপরতা না থাকা ও পুলিশের উপর ক্ষোভে উত্তেজিত জনতা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ ও থানা ঘেরাও করার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এসময় এলাকাবাসীর সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসি সূত্রে জানা যায়, জেলার ভালুকা জমিরদিয়া মাস্টার বাড়ি এনআরজি কম্পোজিট ইয়ার্ন ডাইংয়ে কর্মরত সজিব ছুটিতে বাড়ি আসে। শুক্রবার বিকেলে বাড়িরপাশে শুকনি বিলের পাড়ে বসে ক‘জন বন্ধু মিলে তাস খেলছিল। খবর পেয়ে সন্ধ্যার ঘন্টাখানেক আগে ঘটনাস্থলে গিয়ে ধাওয়া করে ত্রিশাল থানার এএসআই সোহেলের নেতৃত্বে ত্রিশাল থানা পুলিশ। ধাওয়া খেয়ে শুকনি বিলে ঝাপ দেয় সজিব সহ আরো দুজন।

অন্য দুজন উঠে পুলিশের কাছে ধরা দিলে এরপর আর পাড়ে উঠে আসতে পারেনি সজিব। প্রায় ঘন্টা খানেক অপেক্ষার পর থানায় ফিরে আসে পুলিশ। এরপর থেকে দু‘দিন স্থানীয় এলাকাবাসি কচুরিপনা সরিয়ে সরিয়ে ওই বিলে সজিবের খোঁজ করতে থাকলে গতকাল রোববার দুপুর দেড়টার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার হয়। মৃত সজিব পৌরশহরের চরপাড়া গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে।

ওই ঘটনায় ডুবুরিদল না ডাকা কিংবা কোন প্রশাসনের তেমন কোন উদ্ধার তৎপরতা না থাকায় উত্তেজিত জনতা লাঠিসোটা সহ সজিবের মরদেহ কাধে নিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ ও থানা ঘেরাও করার চেষ্টা করে। লাশ সহ মিছিল নিয়ে থানার সামনে পর্যন্ত আসলে পুলিশ তাদের ধাওয়া করে। এ সময় বিক্ষুদ্ধ জনতা পুলিশকে লক্ষ ইট মারলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রবঙ্গ করে লাশ থানায় নিয়ে যায়। এ সময় আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে ফেলে।

এদিকে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর অভিযোগ চিহ্ণিত মাদক সেবনকারী ও জুয়ারী গ্রেফতার না করে কয়েকজন এএসআই মিলে নিরীহ মানুষকে হয়রানি করে থাকে। এদের মধ্যে এএসআই সোহেলের প্রতি বেশী ক্ষোভ এলাকাবাসীর।

প্রত্যক্ষদর্শী নাজমুল জানান, পুলিশের ধাওয়া খেয়ে শুকনি বিলে ঝাপ দেয় সজিব। দুইজন বিল থেকে উঠে এলেও পাড়ে উঠে আসেনি সজিব।

চাচা শহিদুল হক বলেন, পুলিশের ধাওয়ায় ভাতিজা বিলে ঝাপ দিয়ে নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে দুদিন খোজাখোজির পর আমরা লাশ খুজে পাই।

এএসপি আল আমিন জানান, পুলিশের ধাওয়ায় সজিব নিখোঁজের অভিযোগে তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করেছি। পরে শুকনি বিল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয় এলাকাবাসি। লাশ পোষ্ট মর্টেমের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।