রাকসু নির্বাচন চেয়ে উপাচার্যকে স্মারকলিপি

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (রাকসু) নির্বাচন চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। পাঁচদিনের গণস্বাক্ষর কর্মসূচি শেষ করে আজ মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটায় ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীরা প্রশাসনকে স্মারকলিপি প্রদান করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পক্ষে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা স্মারকলিপি গ্রহণ করেন। তিনি বলেন, ‘রাকসু নির্বাচনের বিষয়টি সহজ প্রক্রিয়া নয়। এ নির্বাচন শুধু আমরা চাইলেই হবে না। এ বিষয়ে সরকারের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। আমি উপাচার্যের সাথে বিষয়টি নিয়ে কথা বলবো।’

স্মারকলিপিতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাদেশ অনুযায়ী রাকসু নির্বাচনের কথা থাকলেও প্রায় ২৮ বছর ধরে তা অচল হয়ে রয়েছে। রাকসু নির্বাচন না থাকায় শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দাবি ও সমস্যা নিয়ে কথা বলার কোন প্রতিনিধি নেই। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট পরিপূর্ণ হচ্ছে না এবং ছাত্রদের মধ্যে যোগ্য নেতৃত্ব তৈরি হচ্ছে না।

সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী সজীব কুমার, গণিত বিভাগের মো. হাবিবুর রহমান, জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মো. শরীফ, আরবী বিভাগের জোবায়ের হোসেন জোহা প্রমুখ স্মারকলিপি প্রদান করেন।

তারা জানান, সংগঠনটির কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও প্রতিবছরই শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে চাঁদা নেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও রাকসু নির্বাচনের জন্য প্রশাসন কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তারা বলেন, আমরা রাকসু নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন করছি। যেকোনো পরিস্থিতিতে আমরা ধারাবাহিকভাবে এ আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

উল্লেখ্য, গত ১৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মোমবাতি প্রজ্বালন করে রাকসু নির্বাচনের দাবিতে ‘শিক্ষার্থীদের আন্দোলন মঞ্চে’ জড়ো হন শিক্ষার্থীরা। এ সময় দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া এবং ধারাবাহিক কর্মসূচি আয়োজনের শপথ নেন তারা।

এরই প্রেক্ষিতে পরেরদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার চত্বরে পাঁচ দিনব্যাপী গণস্বাক্ষর কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়াও আগামী বৃহস্পতিবার মুক্তমঞ্চে রাকসু কেন প্রয়োজন এ বিষয়ে একটি বিতর্ক প্রতিযোতা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান শিক্ষার্থীরা।

প্রিন্স, ঢাকা