তরুণ প্রজন্মকে তথ্য ও প্রযুক্তি নির্ভর করে গড়তে হবে: কমিশনার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সালে তাঁর পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়কে নিয়ে আগামী ২০২১ সালের মধ্যে এদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তরের পরিকল্পনা গ্রহণ করেন।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আইসিটি বিষয়ে পড়াশোনা শেষ করে বিশ্বে সুনাম অর্জন করা সজীব ওয়াজেদ জয়কে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা করে তথ্য প্রযুক্তিতে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ শুরু করা হয়। সরকারের নিরলস প্রচেষ্টা ও আন্তরিকতায় বিগত ২০০৯ সাল থেকে অদ্যাবধি ডিজিটালাইজেশন কার্যক্রমে এদেশে একটি বিপ্লব সাধিত হয়েছে। এ বিপ্লবে আমরা সকলেই শরীক হয়েছি।

আমরা এখন ঘরে বসে সকল ধরনের সরকারি সেবা ভোগ করছি। অনলাইনে চাকুরির তথ্যসহ যাবতীয় সেবা ও স্কুল-কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। ২০১০ সাল পর্যন্ত দেশের মাত্র ১ কোটি মানুষ ইন্টারনেট সেবা ভোগ করেছে। বর্তমানে ৮ কোটি লোক ইন্টারনেট সুবিধা ভোগ করছে। দিন বদলের হাতিয়ার হচ্ছে ইন্টারনেট। দেশের ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে ১২ কোটি মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করে তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে যোগাযোগ ও আদান-প্রদানসহ সব কিছু হাতের মুঠোয় নিয়ে এসেছে। এটা ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল।

তথ্য প্রযুক্তির অগ্রগতির কারণে সরকারের ওয়েব পোর্টালে ২৫ হাজার ওয়েব সাইট ও সারাদেশে ৪ হাজার ৫৫৪টি ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে জনগণের সেবা প্রদান করা হচ্ছে। পাশাপাশি তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সরকার প্রায় ২’শ প্রকার সেবা দেয়ার কারণে দেশে প্রতিবছর হাজার হাজার লোকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে। শেখ হাসিনার অবদান, ডিজিটাল হলো জীবনমান।

আইসিটি বিষয়ে সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে তরুণ প্রজন্মকে দক্ষতার সাথে জ্ঞান অর্জন করে তথ্য ও প্রযুক্তি নির্ভর নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। তাহলে আগামী ২০২১ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ ও মধ্যম আয়ে উন্নীত এবং ২০৪১ সালে বাংলাদেশ উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে।

 মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত কনসার্ট ফর আইসিটি’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিভাগীয় কমিশনার অফিস ও জেলা প্রশাসন আয়োজিত দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ‘সবার জন্য নিরাপদ ইন্টারনেট’।

জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমানের সভাপতিত্বে ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. হাবিবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জাতীয় তথ্য ও প্রযুক্তি দিবসের সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. নুরে আলম মিনা।

বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (এডমিন) মাসুদুল হাসান, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) নুরুল আলম নিজামী, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মো. মুমিনুর রশিদ আমিন, চুয়েটের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের ডিন ড. প্রফেসর কৌশিক দেব, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. দেলোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মাসহুদুল কবির, উপপরিচালক (স্থানীয় সরকার) মো. নায়েব আলী।

দুপুর আড়াইটায় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসের সামনে বেলুন উড়িয়ে দিবসটির উদ্বোধন করেন বিভাগীয় কমিশনার। এরপর সার্কিট হাউস থেকে বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানের নেতৃত্বে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে গিয়ে শেষ হয়।

র‌্যালিতে সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে কর্মরত পদস্থ কর্মকর্তা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। বিকেল ৪টায় এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে শুরু হয় কনসার্ট ফর আইসিটি। অনুষ্ঠানটির ইভেন্ট ছিল প্লেন-বি।

আঁখি মজুমদারের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত কনসার্টে অংশ নেন ব্যান্ড শো- প্রিনম, সাস্টেইন, নাটাই, রিসেন্ট, অসময়, ফেইথফু ও লয়ার। ড্যান্স গ্রুপে ছিলেন- ওটু স্ট্রিট ড্রান্স ক্রিউ’র গ্রæপের ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্টস মার্কস অল রাউন্ডার পৃথা, ইউশা, তোরসা, ক্ষুদে গানরাজ প্রিয়া, চ্যানেল আই’র স্পেশাল ফর বেস্ট সিঙ্গার শাহরিয়ার, রেশমী ও জেলা প্রশাসনের সদর সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) আবদুল্লাহ আল মনসুর।

প্রিন্স, ঢাকা