তামিমের প্রতিপক্ষ নির্ধারণী লড়াই মাশরাফি, সাকিব না মাহমুদউল্লাহ

নিউজ ডেস্ক: চলতি বিপিএলের লিগ পর্বে একমাত্র কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হাতে আছে দুটি ম্যাচ। ছয় দলের বাকি আছে কেবল একটি করে খেলা। যদিও সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলে ধরাছোঁয়ার বাইরে তামিম ইকবালের কুমিল্লা। শীর্ষস্থান নিশ্চিত হওয়ায় দ্বিতীয় স্থানের জন্য এখন ত্রিমুখী লড়াইয়ে মাশরাফি মর্তুজার রংপুর রাইডার্স, সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটস ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের খুলনা টাইটানস।

সাত দলের এবারের আসরে এরই মধ্যে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে চিটাগং ভাইকিংস, সিলেট সিক্সার্স ও রাজশাহী কিংসের। এখন অপেক্ষা কোয়ালিফায়ার ও এলিমিনেটর পর্বের। বাইলজ অনুযায়ী প্রথম কোয়ালিফায়ারের মুখোমুখি হবে শীর্ষ দুই দল। এ ম্যাচের জয়ী দল উন্নীত হবে ফাইনালে। আর এলিমিনেটর পর্বে হারা দল ছিটকে যাবে ফাইনালের রেস থেকে। প্রথম কোয়ালিফায়ারে হারা দল দ্বিতীয় আরেকটি সুযোগ পাবে। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে এলিমিনেটর পর্বের জয়ী দল দ্বৈরথে নামবে প্রথম কোয়ালিফায়ারে হারা দলের সঙ্গে। এ ম্যাচের জয়ী দলের সঙ্গে প্রথম কোয়ালিফায়ার পর্বের জয়ী দল মুখোমুখি হবে শিরোপা লড়াইয়ে, যার অর্থ— শীর্ষ দুই দলের মধ্যে জায়গা করে নিতে পারলে ফাইনালে ওঠার জন্য থাকবে দুটো সুযোগ। কিন্তু তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে থাকা দল সুযোগ পাবে মাত্র একটি। অর্থাৎ এক ম্যাচ হারলেই ফাইনালের দর্শক।

এরই মধ্যে শীর্ষস্থান নিশ্চিত করে ফেলেছে কুমিল্লা। ১০ ম্যাচে তামিমের দলের সংগ্রহ ১৬ পয়েন্ট। ১১ ম্যাচ খেলে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ঢাকা ও খুলনার সংগ্রহ ১৩ পয়েন্ট করে। অর্থাৎ শেষ দুটি ম্যাচে কুমিল্লা হারলেও শীর্ষচ্যুতির কোনো সম্ভাবনা নেই। ঢাকা ও খুলনা জিতলেও ধরাছোঁয়ার বাইরেই থেকে যাবে তামিমের দল। চতুর্থ স্থানে থাকা মাশরাফির রাইডার্স আরো পেছনে। ১১ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ১২ পয়েন্ট। শেষ ম্যাচে ঢাকাকে হারাতে পারলে সর্বোচ্চ দ্বিতীয় স্থানে ওঠার সুযোগ পাবে মাশরাফিরা।

আজ বিপিএলের প্রথম ম্যাচে কুমিল্লার প্রতিপক্ষ খুলনা। দ্বিতীয় স্থানে ওঠার জন্য এ ম্যাচে জিততেই হবে খুলনাকে। তবে ম্যাচে জিতলেও খুলনা দ্বিতীয় স্থান পাবে কিনা, তা নিশ্চিত নয়। কেননা রংপুরকে হারাতে পারলে দ্বিতীয় স্থান নিশ্চিত হয়ে যাবে ঢাকার। আগামীকাল হাইভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি হবেন মাশরাফি-সাকিব। এ ম্যাচ জিতলে দ্বিতীয় স্থানের সুযোগ থাকবে মাশরাফিদেরও। তবে এক্ষেত্রেও ‘যদি’, ‘কিন্তু’র হিসাব মিলতে হবে রাইডার্সের। কুমিল্লার বিপক্ষে খুলনা জিতে গেলে দ্বিতীয় স্থান লাভের কোনো সুযোগ নেই মাশরাফিদের।

বিপিএলের লিগ পর্বের শেষ দিকে বিতর্কের কেন্দ্রে উইকেট। রান সংগ্রহ করতে গলদ্ঘর্ম হতে হচ্ছে ব্যাটসম্যানদের। স্লো উইকেট, সঙ্গে অসম বাউন্স ও আচমকা বল লাফিয়ে উঠছে, আবার কখনো অস্বাভাবিক নিচু হচ্ছে বল। মিরপুরের উইকেট টি২০-এর জন্য আদর্শ নয় বলে মত প্রকাশ করেছেন তামিম, মাশরাফি ও সুনীল নারিন। এমন উইকেট কারো কপাল ভেঙে দিতে পারে আবার গড়ে দিতে পারে ভাগ্য। আজ দিনের প্রথম ম্যাচে দুই হেভিওয়েট খুলনা-কুমিল্লার ম্যাচে উইকেটের দিকে চোখ থাকবে সবার। সর্বশেষ দুদিনের খেলায় প্রথম ম্যাচে ব্যাট করা দল কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতাই গড়তে পারেনি। শনিবার কুমিল্লার বিপক্ষে আগে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৯৭ রানে অলআউট হয়েছিল রংপুর। পরের দিন প্রথম ম্যাচে সিলেটের বিপক্ষে চিটাগংয়ের ইনিংস শেষ হয় মোটে ৬৭ রানে।

কঠিন সমীকরণ মেলানোর জন্য উইকেটের চ্যালেঞ্জের হিসাব কষতে হচ্ছে শীর্ষ দলগুলোর অধিনায়কদের। আপাতত তামিম কিছুটা স্বস্তিতে থাকলেও সামান্য ভুলের জন্য বড় খেসারত দিতে হতে পারে মাশরাফি, সাকিব কিংবা মাহমুদউল্লাহকে।

শেষ চারের পয়েন্ট টেবিল :

দল ম্যাচ জয় হার পরিত্যক্ত নিট রানরেট পয়েন্ট

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ১০ ৮ ২ ০ ০.৬২ ১৬

ঢাকা ডায়নামাইটস ১১ ৬ ৪ ১ ১.৫৮ ১৩

খুলনা টাইটানস ১১ ৬ ৪ ১ ০.০১ ১৩

রংপুর রাইডার্স ১১ ৬ ৫ ০ -০.০৯ ১২