দাপুটে জয়ে টিকে রইল রাজশাহী

নিউজ ডেস্ক: চিটাগং ভাইকিংস ও রাজশাহী কিংস; পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে ছিলো দুই দলই। চিটাগং ইতিমধ্যে সেরা চারে ওঠার লড়াই থেকে বাদ পড়ে গেছে। সামান্য আশা তৈরি করতে হলেও রাজশাহীর গতকাল জয়ের বিকল্প ছিলো না। সেই জয়টা তারা পেয়েছে।

পয়েন্ট টেবিলের শেষ দল চিটাগং ভাইকিংসকে ৩৩ রানে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের ৫ নম্বরে উঠে এসেছে রাজশাহী কিংস। আগে ব্যাট করা রাজশাহী ৬ উইকেটে তুলেছিলো ১৫৭ রান। জবাবে ১২৪ রানে অলআউট হয় চিটাগং।

এখন সেরা চারে থাকা রংপুর রাইডার্স কিংবা ঢাকা ডায়নামাইটসের পা হড়কালে এবং নিজেরা সবগুলো ম্যাচ জিতলে সেরা চারে ঢুকে পড়ার সুযোগ রইলো রাজশাহীর সামনে। মোটকথা এখনও সেরা চারের লড়াইয়ে নিজেদের টিকিয়ে রাখতে পারলো ড্যারেন স্যামির দল। আরও একবার স্যামির কল্যাণেই জয়টা এলো রাজশাহীর। ব্যাটিংয়ে তাদের শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি। দলীয় ১০ রানেই হারিয়েছিলো তারা ওপেনার মুমিনুল হককে। এরপর লুক রাইট একটা পাল্টা আক্রমণের চেষ্টা করেছিলেন জাকির হাসানকে নিয়ে। জাকির ১৭ রান করে ফিরে আসেন। লুক রাইট করেন ২৫ রান। এরপর মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে জুটি করে চেষ্টা করেছিলেন জেমস ফ্রাঙ্কলিন। কিন্তু মুশফিক যখন ৩১ রান করে আউট হন, তখনও দলীয় স্কোর ১১.৩ ওভারে ৮৬। এখান থেকেই রাজশাহীকে বলার মতো পুঁজি এনে দেন স্যামি।

৬ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে আরও একবার ঝড় তোলেন ক্যারিবিয়ান এই অধিনায়ক। তিনি ২৫ বলে ২টি চার ও ৩টি ছক্কায় সাজানো ৪০ রানের ইনিংস খেলে ফেরেন। ততোক্ষণে রাজশাহী বলার মতো স্কোর পেয়ে গেছে। শেষ ওভারে স্যামির পাশাপাশি ৩০ রান করা ফ্রাঙ্কলিনের উইকেটও হারায় রাজশাহী। জবাব দিতে নেমে আরও একবার দারুণ বিবর্ণ চিটাগংয়ের ব্যাটিং। দলীয় ১৩ রানে ফিরে আসেন তাদের অধিনায়ক ও ওপেনার লুক রনকি। সৌম্য সরকার করেন ব্যক্তিগত ১৩ রান। এরপর এনামুল হক ও ভ্যান জিল একটা জুটি করে একটু আশা তৈরি করেছিলেন। কিন্তু দুজনকেই ফেরান বাংলাদেশ যুবদলের সদস্য, রাজশাহী বোলার কাজী অনিক। এই কাজী অনিকের সামনেই আর প্রতিরোধ গড়তে পারেনি চিটাগং। নিজের তৃতীয় ওভারে এসে তুলে নেন আরও ২ উইকেট। আর শেষ ওভারে তিনি বল করতে এলেই রান আউট হয়ে ফেরেন তাসকিন। সবমিলিয়ে ৩.২ ওভার বল করে ১৭ রানে অনিক তুলে নেন ৪ উইকেট। পাশাপাশি মুস্তাফিজুর রহমানও ছিলেন গতকাল উজ্জল। তিনি ৪ ওভারে ১৮ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট।

রাজশাহীর বোলারদের এই উজ্জ্বলতার দিনে বড় রান পার করে জয়ের স্বপ্ন আর দেখা হয়নি চিটাগংয়ের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

রাজশাহী কিংস: ২০ ওভারে ১৫৭/৬ (স্যামি ৪০, মুশফিক ৩১, ফ্রাঙ্কলিন ৩০, রাইট ২৫, জাকির ১৭; রিকি ৩/৩৩, নাঈম হাসান ১/৯, সানজামুল ১/২৬, তাসকিন ১/৩৬)।

চিটাগং কিংস: ১৯.২ ওভারে ১২৪/১০ (ভ্যান জিণ ২৭, এনামুল ২৩, সিকান্দার ১৭, তানভির ১৩, সৌম্য ১৩; কাজী অনিক ৪/১৭, মুস্তাফিজ ২/১৮, উসামা ১/১৫, সামি ১/২৯)।