‘খাঁচায় মাছের আবাদ হাওরাঞ্চলের মানুষের আশার আলো জাগিয়েছে’

মো. নজরুল ইসলাম, হাওরাঞ্চলের মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে :

হাওরাঞ্চলের বিশাল জলরাশির ভাস্যমান প্লাবন ভূমিতে অভিনব কায়দায় মাছ চাষের সুযোগ তৈরী করে দিয়েছে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিশিষ্ট মৎস্য বিজ্ঞানী ড. ইয়াহিয়া মাহমুদেও পরিকল্পণা ও সরাসরি তত্ত্বাবধানে হাওর অঞ্চলে মাছের উপর নির্ভরশীল মানুষ এখন খাঁচায় মাছ চাষ করে জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করতে পারবে। নেত্রকোণার মোহনগঞ্জের হাওরে পরীক্ষামূলকভাবে খাঁচায় চাষকৃত মাছ আহরণ উপলক্ষে মঙ্গলবার মাঠ দিবস পালন করা হয়। উপস্থিত মাছ দেখে হাওরবাসীর মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে।
প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এএইচএম কোহিনুর বলেন, মাঠ ছাড়া হয় চলতি বছরের ১৪ জুলাই। মাছ আহরণ করা হয় ১৪ নভেম্বর। ১২০ দিনে মনোসেক্স তেলাপিয়ার পোনা বেড়ে ওজন হয় ২০০ থেকে ২৫০ গ্রাম। ড. এএইচএম কোহিনুর আরো বলেন এ বছর ১২টি খাঁচায় বাঁশের ফ্রেম, নেট জাল দিয়ে খাচা তৈরী করা হয়। প্রতিটি খাচা তৈরীবাবদ খরচ হয় এক হাজার ৭ শত টাকা। আগামী বছর ২০টি খাচা তৈরী করা হবে। এতে গুলশা, শিং এবং মাগুও মাছের চাষ করা হবে।
নেত্রকোণার মোহনগঞ্জে পরীক্ষামূলকভাবে খাঁচায় চাষকৃত মাছের আহরণ উপলক্ষে মঙ্গলবার ( ১৪ নভেম্বর) মাঠ দিবস পালন করা হয়। এখানকার হাওর পাড়ের গ্রাম জনদপুরে আয়োজিত মাঠ দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর বিশিষ্ট মৎস্য বিজ্ঞাণী অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদের সরাসরি তত্ত্বাবধানে হাওরে খাঁচায় মাছ চাষ সম্প্রসারণে লক্ষ্যে মোহনগঞ্জে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে স্বাদুপানি কেন্দ্র ময়মনসিংহের মূখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন মোহনগঞ্জ উপজেলা নির্ভাহী অফিসার মেহেদী মাহমুদ আকন্দ, মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মোঃ এনামুল হক নোমান, প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এএইচএম কোহিনুর, ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল হাসান সেলিম। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে হাওর হচ্ছে খাঁচায় মাছ চাষের জন্য স্বর্গরাজ্য। এখানে নদী-নালা, খাল-বিল, হাওর-বাওর তথা ভাস্যমান প্লাবন ভূমিতে নেই কোন তীব্র স্রোত বা জলোচ্ছ্বাস। ফলে সহজেই মৎস্য গবেষণার ফলাফল কাজে লাগিয়ে খাঁচায় মাছ চাষ করে চাষিরা স্বাবলম্বী হতে পারেন। এক্ষেত্রে মৎস্য চাষীদের প্রশিক্ষণ সহ সব ধরনের সহযোগিতা করবে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট।