উন্মুক্ত জলরাশিতে মাছের পোনা অবমুক্ত করল বাকৃবি

 ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: বিশাল হাওর অঞ্চলের উন্মুক্ত জলরাশিতে দেশীয় কার্প জাতীয় মাছের বৃদ্ধির লক্ষ্যে উদ্যোগ নিয়েছে বাকৃবি। চলতি বছরের এপ্রিলে প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে হাওরে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ মারা যায়। এই ক্ষতির হার কমাতে কার্পের কয়েক জাতের মাছের লক্ষাধিক পোনা অবমুক্ত করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ। মঙ্গলবার দুপুর ১ টায় মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ মাঠ গবেষণা কমপ্লেক্সের উদ্যেগে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ হাওরের চামড়াঘাটে ওই পোনা অবমুক্ত করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ মাঠ গবেষণা কমপ্লেক্সের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আহসান বিন হাবিব, বিশ্ববিদ্যালয়ের হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রহমান সরকার, একোয়াকালচার বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মাহফুজুল হক ও অধ্যাপক মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন। আরও উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম ও করিমগঞ্জ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. উজ্জ্বল হোসেন।

মাঠ গবেষণা কমপ্লেক্সের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আহসান বিন হাবিব বলেন, আমরা কার্প জাতীয় মাছের লক্ষাধিক পোনা অবমুক্ত করেছি। যা কার্পের প্রকৃত জার্মপ্লাজমের মজুত বাড়াবে। আশা করা যায় মজুতকৃত কার্পের পোনাগুলো আগামী বছরের মধ্যে ব্রম্নডমাছ হিসেবে পোনা উৎপাদনে সক্ষম হবে। ফলে হাওরে কার্পের অভাব কিছুটা হলেও পূরণ হবে। অদূর ভবিষ্যতে কার্পের পোনা উৎপাদনের মাধ্যমে হাওরে মাছের অভাব দূর হবে।

প্রিন্স, ঢাকা