গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে মানববন্ধন

লক্ষীপুর প্রতিনিধি: লক্ষীপুরে অন্তসত্তা গৃহবধূ কুলসুম আক্তার মুন্নিকে (২১) নির্যাতন করে মুখে বিষ ঢেলে পরিকল্পিতভাবে হত্যা অভিযোগ করে জড়িতদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

শনিবার (৪ নভেম্বর) সকালে সদর উপজেলা ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের চরভূতা গ্রামে এ মানববন্ধন করা হয়। শেষে গৃহবধূ মুন্নির হত্যাকারী তার স্বামী ওসমান গনি ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিচার দাবি করে বিক্ষোভ মিছিল করে তারা।

এসময় বক্তব্য রাখেন, ইউপি সদস্য (মেম্বার) নুরুল ইসলাম পাটোয়ারী, নিহতের বাবা জবিউল্যা, মা শাহেদা বেগম ও নানা শাহ আলম প্রমুখ।

স্থানীয়রা জানায়, প্রায় ৩ বছর আগে ভবানীগঞ্জের চরভূতা গ্রামের কৃষক নুর নবীর ছেলে ওসমানের সাথে মুন্নির বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে শ্বশুর বাড়ির লোকজন তার ওপর নানাভাবে নির্যাতন করে আসছে। এনিয়ে কয়েকবার সালিসী বৈঠক করা হয়েছে।

মুন্নির পরিবারের অভিযোগ, কুলসুম আক্তার মুন্নিকে তার স্বামী ওসমান সোমবার (২৯ অক্টোবর) মারধর করে। একপর্যায়ে তার মুখে বিষ ঢেলে দেয়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মুন্নিকে মৃত ঘোষণা করে। মুন্নির মৃত্যুর বিষয় নিশ্চিত হয়ে লাশ হাসপাতালে রেখে তার স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন পালিয়ে যায়। নিহত মুন্নি ৩ মাসের অন্তসত্তা ছিল। এনিয়ে পুলিশ অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করে।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আনোয়ার হোসেন বলেন, ময়নাতদন্তের চূড়ান্ত প্রতিবেদন ঢাকা থেকে এখনো আসেনি। চূড়ান্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।

লক্ষীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লোকমান হোসেন বলেন, মুন্নির মৃত্যুর ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্তের চূড়ান্ত প্রতিবেদন পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।