সংকট থেকে বেরিয়ে আসতে বিএনপি নির্বাচনে যাবে : শামসুজ্জামান দুদু

নিউজ ডেস্ক : বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, দেশের চলমান সংকট থেকে বেরিয়ে আসার দুটো পথ আছে। একটি নির্বাচন, অন্যটি হচ্ছে গণঅভ্যুত্থান। আমরা নির্বাচন করতে চাই। কিন্তু আমাদের নির্বাচনে যেতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। তবুও নির্বাচনে আমরা যাবোই। 

দুদু বলেন, বাংলাদেশে সরকার পরিবর্তনের প্রয়োজনে ও মানুষের ভোটাধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠা করার স্বার্থে আমরা নির্বাচনে যাবো। কারও কোনও ক্ষমতা নেই বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রাখার। কারণ, সামনের যে নির্বাচন এটা ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন হবে না। এই নির্বাচন হবে গণনির্বাচন।
 
শনিবার সেগুনবাগিচার স্বাধীনতা হলে ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও’ আন্দোলন আয়োজিত ‘রোহিঙ্গা সংকট: বন্ধু রাষ্ট্রের ভূমিকা ও প্রত্যাশা’ শীর্ষক জাতীয় পরামর্শ বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন। 
 
রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও অংশ নেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, সহ-শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক জাহানারা বেগম প্রমুখ।
 
শামসুজ্জামান দুদু বলেন, বাংলাদেশ এখন বন্ধুহীন একটি দেশ। ভারতও এখন মিয়ানমারকে সমর্থন করছে। এ পরিস্থিতি থেকে বের হতে শেখ হাসিনার পদত্যাগই একমাত্র সমাধান। দুদু অভিযোগ করেন, পল্টন, সোহরাওয়ার্দী এমনকি ঢাকার বাহিরে কোন বিভাগীয় শহরেও আমাদের সমাবেশ করতে করতে দেয়া হয় না। যার কারণে ১৯ অক্টোবর সামান্য সুযোগ পেয়ে এয়ারপোর্ট এলাকায় বেগম জিয়াকে দেখতে মানুষে মানুষে সয়লাব হয়ে গিয়েছিল। সেই অসুস্থ নেত্রীকে দুইদিন পরপর কোর্টে নিয়ে সরকার হয়রানি করছে। কিন্তু সরকার বুঝতে ব্যর্থ হচ্ছে যে আগামী বছর তিনিই হচ্ছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপ্রধান।