হানিপ্রীত ইনসানের প্রথম রাতকে ঘিরে

নিউজ ডেস্ক: দুই অনুসারীকে ধর্ষণের দায়ে গত ২৫ অগস্ট ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের বিতর্কিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের ২০ বছর সাজা ঘোষণা করেন দেশটির একটি আদালত। এরপর সিরসা ও পঞ্চকুলায় রাম রহিম অনুসারীদের চালানো সহিংসতায় অন্তত ৩৮ জন নিহত হয়।

এ সহিংসতা ছড়ানোর পেছনে অন্যতম অভিযুক্ত রাম রহিমের কথিত পালিতকন্যা হানিপ্রীত ইনসান। এরপর থেকেই গা ঢাকা দেন তিনি। পরে রাষ্ট্রদোহিতার মামলা করা হয় তার বিরুদ্ধে। হানিপ্রীতের নামে জারি করা হয় লুকআউট নোটিশও। অবশেষে গত ৩ অক্টোবর গ্রেফতার হন হানি।

দিন দশেক পুলিশ হেফাজতে থাকার পর শুক্রবার আদালতের নির্দেশে জেলে পাঠানো হয় তাকে। হানিপ্রীত ছাড়াও তার ছায়াসঙ্গী সুখদীপ কউরকেও জেলে রাখা হয়েছে। শুক্রবার ছিল আম্বালা সেন্ট্রাল জেলে হানির প্রথম রাত।

পুলিশ জানিয়েছে, এদিন জেলে তিনি কিছুই মুখে তোলেননি। এমনকি, সারা রাত না ঘুমিয়েই কাটিয়েছেন। জেলে সুখদীপের সঙ্গেও কোনো কথাই বলছেন না তিনি।

শুক্রবার কঠোর নিরাপত্তায় পঞ্চকুলা থেকে আম্বালা জেলে নিয়ে যাওয়া হয় হানিকে। তাকে বিশেষ নজরদারিতে রাখার জন্য জেলাখানায় তার সঙ্গে সার্বক্ষণিক একজন নারী পুলিশ কর্মী মোতায়েন করা হয়েছে। জেলে পাঠানোর আগে তার মেডিকেল চেকআপও করানো হয়।

আম্বালা সেন্ট্রাল জেল সূত্র জানায়, হানিপ্রীতের শারীরিক পরীক্ষার জন্য তিন সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছিল। প্রায় দুই ঘণ্টা পরীক্ষার পর বোর্ডের চিকিৎসক অর্পিতা গর্গ জানান, হানিপ্রীত সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন।