কোরীয় দ্বীপে যুক্তরাষ্ট্র জাপান দ. কোরিয়ার যুদ্ধবিমান

নিউজ ডেস্ক; উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির জেরে বাড়তে থাকা উত্তেজনায় নতুন পারদ যোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। সামরিক শক্তি প্রদর্শনের অংশ হিসাবে যুক্তরাষ্ট্র বিমান বাহিনীর দুটি বি-১বি ল্যান্সার বোমারু বিমান কোরীয় দ্বীপে চক্কর দিয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে মার্কিন এই বোমারু বিমান কোরীয় দ্বীপে উড়ছে বলে দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনী নিশ্চিত করেছে।

বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনীর জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের দুটি বি-১বি বোমারু বিমানের সঙ্গে দ. কোরিয়ার দুটি এফ-১৫কে যুদ্ধবিমানও গুয়াম ঘাঁটি থেকে উড্ডয়ন করে।’

পৃথক এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনী বলছে, ‘সামরিক এই অনুশীলনে জাপানের যুদ্ধবিমানও যোগ দিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানকে সঙ্গে নিয়ে রাত্রিকালীন প্রথম সামরিক অনুশীলন করেছে মার্কিন সেনাবাহিনী।’

দক্ষিণ কোরিয়ার বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘দক্ষিণ কোরিয়ার আকাশসীমায় প্রবেশের পর বোমারু বিমান দুটি পূর্ব উপকূলে আকাশ থেকে স্থলে ক্ষেপণাস্ত্র কসরত প্রদর্শন করে। পরে দক্ষিণ কোরিয়ার জলসীমা থেকে চীন সীমান্তে মহড়া শেষ করে।’

দ. কোরীয় সেনাবাহিনী বলছে, ‘সামরিক শক্তি জোরদারে নিয়মিত অনুশীলনের অংশ ছিল এটি। যুক্তরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ কোরিয়া জোটের শক্তি প্রদর্শনও এর লক্ষ্য।’

মার্কিন বিমানবাহিনীর মেজর প্যাট্রিক অ্যাপেলগেইট বলেছেন, ‘নিরাপদ ও কার্যকর উপায়ে আমাদের মিত্রদের সঙ্গে রাত্রিকালীন অনুশীলন হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার গুরুত্বপূর্ণ সক্ষমতা যাচাই। আমাদের সকল সহযোগীদের সঙ্গে যেকোনো সময়ে, যেকোনো জায়গায় অভিযান পরিচালনার জন্য এটি পরিষ্কার শক্তি প্রদর্শন।’