নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ শিকারে ২ জেলের করাদন্ড

লক্ষীপুর প্রতিনিধি : ইলিশের প্রজনন মৌসুমে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে লক্ষীপুরের রামগতির মেঘনা নদীতে মা ইলিশ ধরার দায়ে ২ জলেকে ১ মাস করে কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার (৪ অক্টোবর) দুপুরে রামগতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আজগর আলী প্রত্যেক জেলেকে ১ মাস করে কারাদন্ড দেন। এসময় ৫ হাজার মিটার কারেন্টজালে অগ্নিসংযোগ করা হয়।

দন্ডপ্রাপ্ত জেলেরা হলেন উপজেলার চরগাজী ইউনিয়নের বাসিন্দা আবদুল হাসিমের ছেলে মো. জুয়েল (২০) একই এলাকার কামাল হোসেনের ছেলে মো. শরিফ (১৮)।

রামগতি উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. কামাল হোসেন বলেন, সকালে নৌ-পুলিশ, কোস্টগার্ড ও মৎস্য বিভাগ মেঘনা নদীর বয়ারচর এলাকায় অভিযান চালায়।

এসময় আইন অমান্য করে মাছ ধরার দায়ে ২ জেলেকে আটক করা হয়। জব্দ করা হয় ৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল। জব্দকৃত জালে অগ্নিসংযোগ করে ধ্বংস করা হয়। পরে আটক জেলেদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে তাদের প্রত্যেককে এক মাস করে কারাদন্ড দেয়া হয়। প্রসঙ্গত, রোববার ১অক্টোবর থেকে ২২অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশের ভরা প্রজনন মৌসুম।

এ ২২দিন ইলিশসহ সকল প্রজাতির মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। লক্ষীপুরের রামগতি থেকে চাঁদপুরের ষাটনল পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার মেঘানা নদী এলাকায় মাছ ধরা যাবে না। এসময় মাছ শিকার, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ ও বিক্রি নিষিদ্ধ। এ আইন আমান্য করলে জেল অথবা জরিমানা এবং উভয় দন্ডের বিধান রয়েছে।