আগামী বছরের শুরুতে উদ্বোধন হবে ফেনীর উড়াল সেতু

নিউজ ডেস্ক: ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর মহিপাল চৌরাস্তায় নির্মাণ কাজ দ্রুত এগিয়ে চলায় দেশের প্রথম ও একমাত্র ৬ লেনের উড়াল সেতু দৃশ্যমান হতে শুরু করেছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, নির্ধারিত মেয়াদের কয়েক মাস আগে নির্মাণ কাজ শেষ হওয়াতে কমবে এ পথের যানজট আর যাত্রীদের দুর্ভোগ। আগামী বছরের প্রথম দিকে প্রধানমন্ত্রী এ উড়াল সেতুটির উদ্বোধন করবেন বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক ও ফেনী নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের ক্রসিং এর কারণে ফেনীর মহিপালের চৌরাস্তায় যানজটের চিত্র নিত্যদিনের। দীর্ঘদিনের এ যানজট নিরসন ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় ফেনীর এ মহিপাল চৌরাস্তায় ২০১৬ সালে শুরু হয় দেশের প্রথম ও একমাত্র ৬ লেইনের উড়াল সেতুর কাজ।

মোট ১ হাজার ৮’শ ২০ মিটার দীর্ঘ ও প্রায় ৪৫ মিটার প্রকল্পের মধ্যে মূল সেতুটি হবে ৬’শ ৬০ মিটার দীর্ঘ। ইতোমধ্যে যার ১’শ ৭৮ টি পাইল এবং ১’শ ৩রটি পিসি গার্ডারে সবকটি এবং ১১টি স্পানের ৭টির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সেতুটির কাজ দ্রুত চলায় যাত্রী চালক সবাই খুশি।

স্থানীয় জনগণ বলেন, ‘আগে ঢাকা-চট্টগ্রাম আমাদের যাতায়াত করতে পাঁচ ঘণ্টা লাগত এখন ফ্লাইওভার হয়ে গেলে তিন ঘণ্টা লাগবে। যার সুফল সবাই পাবে।

ফেনী জেলা ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক মনে করেন, উড়াল সেতুটি চালু হলে এখানকার যানজট শূন্যের কোঠায় নেমে আসবে।

ফেনী জেলার ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক মীর গোলাম ফারুক বলেন, ‘চট্টগ্রাম পর্যন্ত ফ্লাইওভার হলে এই রুটে কোন যানজট থাকবে না। ফলে প্রত্যেকেই উপকৃত হবে।’

২০১৫ সালেল পহেলা এপ্রিল এ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে ২০১৮ সালে জুন মাসে শেষের কথা থাকলেও মাঠে কাজ শুরু হয় প্রায় ৮ মাস পর। তারপরও নির্ধারিত মেয়াদের কয়েকমাস আগেই এর কাজ শেষ হবে বলে পরিদর্শনের এসে জানান সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়েদুল কাদের।

এ প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী জনাব ওবায়েদুল কাদের বলেন, ‘আমার মনে হয় এই ডিসেম্বরের মধ্যে ফ্লাই্‌ওভারটা সম্পূর্ণ করা সম্ভব হবে না। তবে মার্চের মধ্যে ফ্লাইওভারটা উদ্বোধন করতে পারব।’

প্রায় ১’শ ৫৮ কোটি টাকা ব্যয়ে উড়াল সেতুর প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দায়িত্ব পালন করছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১৯ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্যাটেলিয়ান।