মঠবাড়িয়ায় ৩ কর্মকর্তা ও ১ সার্ভেয়ারের বিরুদ্ধে দূর্নীতির তদন্ত

পিরোজপুর প্রতিনিধি: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ভূমি কার্য্যে নিয়োজিত সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার ফারুকুজ্জামান, উপসহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার নিরন্ধন মিস্ত্রি, উপসহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার মাহাবুব আলম ও সার্ভেয়ার মজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগে সোমবার বরিশাল বিভাগীয় জোনাল সেটেলমেন্টে অফিসার তার কার্য্যালয় তদন্ত শুরু করেছেন।

অভিযোগে জানা জানাগেছে,উপজেলার আমড়াগাছিয়া গ্রামের মহিউদ্দিন তার দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় হোগলপাতি মৌজার ৭৯, ৮০ নং খতিয়ানের ৩- ৪৮ শতাংশ জমির সকল কাগজপএ থাকা সও্বেও প্রতিপক্ষ স্হানীয় ফরাজী কলেজের প্রভাষক মাসুমা বেগম,নূর হোসেন,রবি তালুকদার ও বিনয় ভূষনের নামে এবং তাদের মৃত ব্যক্তির নামে মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে নিয়মনীতি উপেক্ষা করে ৩০ ধারায় পর্চা করে দেন। এতে কৃষক মহিউদ্দিন ক্ষতি গ্রস্হ হয়ে অবশেষে গত ২৪ আগষ্ট ভূমি সচিবের বরাবর ওই ৪ জনের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ দায়ের করেন।

ভূমি সচিব জরিপ অধিদপ্তরের ডিজিকে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহনের নির্দেশ দেন। এদিকে উর্ধ্তন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা পেয়ে বরিশাল জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার এজাজ আহন্মেদ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেন। এ ব্যাপারে বরিশাল জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার এজাজ আহন্মেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত চলছে।খুব শীঘ্রই তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, মঠবাড়িয়া সেটেলমেন্ট অফিসের সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার ফারুকুজ্জামান দূর্নীতিতে জড়িয়ে পড়ায় পিরোজপুর (৩) মঠবাড়িয়ার সংসদ সদস্য ডাঃ রুস্তুম আলী ফরাজী ভূমি সচিবের কাছে ডিও লেটার দিয়ে গত ১৯ সেপ্টেম্বর তাকে স্ট্যান্ড রিলিজ করেন।