গৌরীপুরে বিলে বাঁধ দিয়ে পুকুর নির্মাণে ডুবে গেছে জমির ফসল

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা: ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌর শহরের মাছুয়াকান্দা বিলে বাঁধ দিয়ে পুকুর নির্মাণ করায় জলাবদ্ধতার কারণে ডুবে গেছে সহ¯্রাধিক একর জমির ফসল ডুবে গেছে। জলাবদ্ধতার শিকার বিক্ষুব্ধ ৭ গ্রামের লোকজন মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর/১৭) পুকুরের পাড় কেটে দিয়েছে। এ সময় দা-কোদাল নিয়ে বাঁধ কেটে জলাবদ্ধতা নিরসনের স্থায়ী সমাধানের দাবিতে কৃষকরা বিক্ষোভ মিছিল করে।

এলাকাবাসী জানায়, গৌরীপুর পৌর শহরের কোনাপাড়া ও মাছুয়াকান্দা গ্রামের মাঝখানে মাছুয়াকান্দা বিলটি অবস্থিত। এই বিলে মাঝিপাড়া, মাছুয়াকান্দা, দৌলতপুর, ইসলামাবাদ, ঘোষপাড়া, কোনাপাড়া, পাছারকান্দা গ্রামের কৃষকের প্রায় দুই সহ¯্রাধিক ফসলি জমি রয়েছে। বিলের মাঝখানে অপরিকল্পিতভাবে অসংখ্য পুকুর নির্মাণ করায় এ মৌসুমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে কৃষকের সহ¯্রাধিক একর জমির ফসল পানিতে তলিয়ে যায়। জলাবদ্ধতার শিকার হয় ২শতাধিক বাড়িঘর। ভেসে যায় প্রায় ২০টি পুকুরের অর্ধকোটি টাকার মাছ।

মাছুয়াকান্দা বিলের পানি প্রবাহিত হয়ে কোনাপাড়া ভালকি বিলে চলে যেতো। কিন্তু বিলের জমিতে পুকুর নির্মাণ করার প্রতিযোগিতা বৃদ্ধি পাওয়ায় বিলের পানি চলাচলের রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। সর্বশেষ মৎস্য ব্যবসায়ী আশীষ চৌহান বিলের জমিতে বাঁধ দিয়ে পুকুর নির্মাণ করায় বিলের পানি চলাচলের রাস্তা সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে গ্রামবাসী বিক্ষুব্দ হয়ে উঠে।

স্থানীয় কৃষকদের অভিযোগ, জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি পেতে পানি চলাচলের জন্য একটু জায়গা ছেড়ে দিতে আশীষ চৌহানকে অনুরোধ করে। কিন্তু তিনি গ্রামবাসীর কথা না শোনায় বিক্ষুব্ধ লোকজন মঙ্গলবার তাঁর বাঁধ কেটে দেয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আশীষ চৌহান বলেন, কালাম স্যারের বড় বড় পুকুরগুলোর কারণে এখানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। নিজের পুকুরগুলো বাঁচাতেই তিনি এলাকাবাসী নিয়ে আমার ভাড়া নেওয়া পুকুরের বাঁধ কেটে দিয়েছে। এতে আমার লক্ষাধিক টাকার পাবদা-গুলশা মাছ পানিতে ভেসে যায়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মর্জিনা আক্তার বলেন, কৃষি ও মৎস্য অফিসারকে সাথে নিয়ে উবয় পক্ষের সাথে আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের উদ্যোগে নেয়া হবে।