প্রকৃতি প্রেমিক লেখক দ্বিজেন শর্মা আর নেই

নিউজ ডেস্ক: প্রকৃতি প্রেমিক লেখক দ্বিজেন শর্মা আর নেই। তিনি শুক্রবার ভোররাত ৩টা ৫০ মিনিটে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেছেন।

বিশিষ্ট এই ‘নিসর্গসখা’র বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। তিনি বেশ কিছুদিন ধরে নানা রোগের জটিলতায় ভুগছিলেন। প্রয়াতের পুত্র সুমিত্র শর্মা বাসস’কে শুক্রবার দুপুরে এই তথ্য জানিয়েছেন।

লেখক দ্বিজেন শর্মা স্ত্রী, এক পুত্র, এক কন্য, আত্মীয়-স্বজনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহি রেখে গেছেন।
সুমিত্র শর্মা জানান, লেখক দ্বিজেন শর্মার মরদেহ স্কয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে। প্রয়াতের শেষ কৃত্য কখন, কোথায় হবে সে বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। পারিবারিক সূত্র জানায়, প্রয়াতের মেয়ে দেশের বাইরে রয়েছেন, তিনি ফিরলেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

বিশিষ্ট বিজ্ঞানলেখক, শিক্ষক দ্বিজেন শর্মা তাঁর কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বাংলা একাডেমি, একুশে পদকসহ বিভিন্ন পুরস্কার পেয়েছেন।

দ্বিজেন শর্মা ১৯২৯ সালের ২৯ মে তৎকালীন সিলেট বিভাগের বড়লেখা থানার শিমুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। কলকাতা সিটি কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন দ্বিজেন শর্মা। পরে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উদ্ভিদবিজ্ঞানে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন।

দ্বিজেন শর্মা আমৃত্যু প্রকৃতি প্রেমিক ছিলেন। প্রকৃতিই ছিল তাঁর অন্তরে। প্রকৃতি নিয়ে তিনি প্রচুর লেখালেখি করেছেন। বিজ্ঞান, শিশুসাহিত্যসহ অন্য বিষয়েও লিখেছেন তিনি।
প্রকৃতি প্রেমিক লেখক দ্বিজেন শর্মার মৃত্যুতে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিয়াউদ্দিন তারেক আলী ও সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

তারা প্রয়াত দ্বিজেন শর্মার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে শোকার্ত পরিবার পরিজন ও শুভাকাংখীদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

শোক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, আজীবন প্রকৃতি ও উদ্ভিদ জগতের সেবক দ্বিজেন শর্মা তাঁর কর্মময় জীবনে প্রকৃতিকে নিজের জীবনের সাথে জড়িয়ে সমাজ, সভ্যতা ও মানবিকতার যে পরিচয় বহন করে গেছেন, তা চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে। তিনি বেঁচে থাকবেন মানব প্রেমের স্মরণীয় ইতিহাস হিসেবে। তাঁর লেখা ও কর্মময় জীবন ভবিষৎ সভ্যতা সমাজ ও রাষ্ট্রের দায়িত্ববোধকে অনুপ্রেরণা যোগাবে।