মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেন কমেছে

নিউজ ডেস্ক: চলতি বছরের জুলাইয়ে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দৈনিক লেনদেনের পরিমাণ ২৫ শতাংশ কমেছে। জুনে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে প্রতিদিন গড়ে ১ হাজার কোটি টাকার লেনদেন হলেও জুলাইয়ে তা ৭৫৩ কোটি টাকায় নেমে এসেছে। তবে জুলাইয়ে সক্রিয় হিসাবের সংখ্যা জুনের তুলনায় ৯ লাখ বেড়েছে।গত জুনে সক্রিয় মোবাইল আর্থিক হিসাবের (এমএফএস) সংখ্যা ছিল ২ কোটি ৭৪ লাখ, জুলাইয়ে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৮৩ লাখে। এমএফএস নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ প্রকাশিত পরিসংখ্যানে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

খাতসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, রোজার ঈদের কারণে জুন মাসে আর্থিক লেনদেন স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় অনেক বেড়েছিল। এর ফলে জুনে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দৈনিক লেনদেন প্রথমবারের মতো হাজার কোটি টাকার মাইলফলক ছাড়িয়েছিল। জুলাইয়ে এসে সেটি কমে যাওয়ায় দৈনিক লেনদেন ২৫ শতাংশ কমেছে। বর্তমানে ১৭টি ব্যাংক দেশে এমএফএস সেবা দিচ্ছে।

জানতে চাইলে এমএফএস সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বিকাশের হেড অব করপোরেট কমিউনিকেশন শামসুদ্দিন হায়দার বলেন, ঈদ বা উৎসবকে কেন্দ্র করে সব সময়ই সক্রিয় এমএফএস হিসাবের সংখ্যা বাড়ে, এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। ঈদের পরে জুলাই মাসে সক্রিয় লেনদেন তাই জুনের মতো না হওয়াই স্বাভাবিক। তবে এতে এই খাতের স্বাভাবিক প্রবৃদ্ধি কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, জুলাই মাসে মোট নিবন্ধিত এমএফএস হিসাবের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ কোটি ৪৪ লাখ, যা আগের মাসে ছিল ৫ কোটি ৩৭ লাখ। এমএফএসের মাধ্যমে মোট লেনদেন হয়েছে ২৩ হাজার ৩৬৯ কোটি টাকা, জুনে এর পরিমাণ ছিল ৩০ হাজার কোটি টাকা। লেনদেনের অর্থ কমার পাশাপাশি জুলাইয়ে লেনদেনের সংখ্যাও ১৯ শতাংশ কমেছে। জুলাইয়ে এই মাধ্যমে মোট লেনদেন হয়েছে ৪৯ লাখ ১৩ হাজার, জুনে যা ছিল ৬০ লাখ ৬৪ হাজার।

লেনদেন কমলেও জুলাইয়ে মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্টের সংখ্যা প্রায় ২ শতাংশ বেড়েছে। জুনে এই খাতের নিবন্ধিত এজেন্টের সংখ্যা ছিল ৭ লাখ ৫৮ হাজার, জুলাইয়ে তা বেড়ে ৭ কোটি ৭২ লাখ হয়েছে।

জুলাইয়ে মোবাইল ফোনে কর্মীদের বেতন দেওয়ার পরিমাণ কমেছে ৭০ শতাংশ। জুলাইয়ে এমএফএসের মাধ্যমে বেতন বাবদ ১৯৮ কোটি টাকা বিতরণ করা হয়েছে, জুনে যার পরিমাণ ছিল ৬৬৬ কোটি টাকা। বেতনের পাশাপাশি এমএফএসের মাধ্যমে জুলাইয়ে বিভিন্ন সেবা বিল পরিশোধের পরিমাণও প্রায় ১৩ শতাংশ কমেছে। জুনে এমএফএস মাধ্যমে ২৩২ কোটি টাকার সেবা বিল পরিশোধ করা হয়েছে।

এদিকে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বিদেশ থেকে আসা রেমিট্যান্স বা প্রবাসী আয়ের পরিমাণও জুলাইয়ে ৭ শতাংশ কমে গেছে। জুলাইয়ে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ৭ কোটি ৭১ লাখ টাকা, জুনে যা ছিল ৮ কোটি ৩১ লাখ টাকা।

এমএফএসের মাধ্যমে অবৈধভাবে রেমিট্যান্স আসা ঠেকাতে চলতি বছরের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ ব্যাংক এক নির্দেশনায় লেনদেন সীমা কমিয়ে দেয়। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, একটি এমএফএস হিসাব থেকে এক দিনে এখন সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থ উত্তোলন করা যায়, এটি আগে ছিল ২৫ হাজার টাকা। আর্থিক লেনদেনের সীমা কমে যাওয়ায় সক্রিয় হিসাব ব্যবহারের প্রবণতা আগের চেয়ে বাড়ছে বলে খাতসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা মনে করেন।