হাইড্রোজেন বোমার সফল পরীক্ষা দাবি উ. কোরিয়ার

নিউজ ডেস্ক: জেদের ষষ্ঠ পরমাণু বোমার সফল পরীক্ষার দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া। ধারণা করা হচ্ছে, দেশটির চালানো পরীক্ষাগুলোর মধ্যে এটি সবচেয়ে শক্তিশালী পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা।

রোববার উত্তর কোরিয়া ঘোষণ করে তারা একটি হাইড্রোজেন বোমা তৈরি করেছে, যেটি বিস্ফোরণের জন্য প্রস্তুত। এই ঘোষণার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সেটির পরীক্ষা চালানো হয়।

উত্তর কোরিয়ার এই পারমাণবিক বোমা পরীক্ষার বিষয়টি জাপানের পক্ষ থেকেও নিশ্চিত করা হয়েছে। জাপানের জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের সঙ্গে বৈঠকের পর দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কোনো বলেন, আবহওয়া সংস্থার তথ্য ও অন্যান্য উপাত্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তারা নিশ্চিত হয়েছেন যে, উত্তর কোরিয়া রোববার একটি পরমাণু পরীক্ষা চালিয়েছে।

এদিন উত্তর কোরিয়ায় দুটি ভূ-কম্পন হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) জানায়, দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ৬ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্পটি ছিল ‘সম্ভাব্য বিস্ফোরণ’।

দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা জানান, ভূমিকম্প কেলজু কাউন্টিতে ঘটেছে, যেখানে উত্তর-পূর্বের পাংজি-রিং পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্র অবস্থিত।

এর আগে ক্ষেপণাস্ত্রে বহনযোগ্য নতুন পারমাণবিক বোমা তৈরির দাবি করে উত্তর কোরিয়া।

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সির (কেসিএনএ) বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

কেসিএনএ-তে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যায়, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন দেশটির নিউক্লিয়ার উইপন্স ইনস্টিটিউটে নতুন করে তৈরি করা বোমা পরিদর্শন করছেন।

‘ব্যাপক ধ্বংসাত্মক ক্ষমতাসম্পন্ন’ এই বোমাটি আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রে সংযোজন করা যাবে বলে দাবি উত্তর কোরিয়ার।

তবে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র তৈরিতে তাদের সক্ষমতা বাড়াচ্ছে। যে কোনো সময় দেশটি নতুন করে পারমানবিক বোমার পরীক্ষা চালাতে পারে।