সড়ক-মহাসড়ক যান চলাচলের উপযোগী: কাদের

নিউজ ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সারাদেশের সড়ক-মহাসড়কগুলো যান চলাচলের উপযোগী হয়েছে। তবে রাজধানীর যানজট নিরসনের দায়িত্ব আমার না, দুই সিটি করপোরেশনের। এরপরও আমি দুই মেয়রের সঙ্গে কথা বলেছি এবং আবারও বলাবো।’ গতকাল মঙ্গলবার সকালে সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিরুদ্ধে বিআরটিএ’র ভিজিলেন্স টিমের কার্যক্রম পরিদর্শনকালে তিনি এ কথা বলেন।

রাজধানীর ভাঙা সড়কের কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সোমবার থেকে রাজধানীতে যানজটের চিত্র ভিন্ন। মঙ্গলবারও অনেক কম এবং এটা ক্রমান্বয়ে কমে আসবে। কারণ সব মানুষ এখন ঘরমুখো।’ ঈদে কোনো পরিবহন যদি অতিরিক্ত ভাড়া নেয়, তাহলে বিআরটিএ’র ভ্রাম্যমাণ আদালতে খবর দেওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘কেউ যদি অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে, তাহলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে, আপনারা সেখানে অভিযোগ করবেন। অভিযোগ সত্য হলে ওই পরিবহনের কাউন্টার বন্ধ করে দেওয়া হবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এ বছর দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যা হয়েছে। এ কারণে সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে সেগুলো মেরামতের নির্দেশ দিয়েছি। এরপরও ঈদ যাত্রায় রাস্তায় যানজট যে হবে না, সেই নিশ্চয়তা দিতে পারি না। তবে এবার রাস্তার কারণে যানজট হবে না।’ মহাসড়ক খুব ভালো অবস্থানে আছে। যেগুলো বন্যা ও টানা বর্ষণের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল, সেগুলো গত সোমবারের মধ্যেই যানবাহন চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে।’

চালকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনারা ঘুমন্ত অবস্থায় গাড়ি চালাবেন না। গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন না। কোনো অবস্থায় অতিরিক্ত গতিতে গাড়ি চালাবেন না। ঈদের সময় ভারি যানবাহন চালাবেন না। ফিটনেস বিহীন গাড়ি চালাবেন না। আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হবেন। নইলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে ঢাকা-৫ আসনের আলহাজ হাবিবুর রহমান মোল্লা এমপি, সায়েদাবাদ পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, যাত্রাবাড়ি থানা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক বাচ্চু খন্দকার, কৌশিক আহমেদ জসিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগে ঢাকা-পিরোজপুর রুটের দোলা পরিবহনকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সাথে তাদের কাউন্টার বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বিআরটিএর মোবাইল কোর্ট।