পরবর্তী টার্গেট গুয়াম: উত্তর কোরিয়া

নিউজ ডেস্ক: জাপানের উপর দিয়ে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের পর, প্রশান্ত মহাসাগরে মার্কিন সামরিক ঘাঁটি ‘গুয়াম’ পরবর্তী টার্গেট বলে জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া। সেদেশের সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে আরো ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের অঙ্গীকার করেছেন কিম জং উন। জাতিসংঘের নিন্দা এবং যুক্তরাষ্ট্রের হুমকির মুখে তিনি এ অঙ্গীকার করে বলেন, পরমাণু ক্ষমতাধর তার দেশের উস্কানিমূলক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ ছিল নিছক একটি ‘নাটক মঞ্চস্থ’ মাত্র। উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক কর্মসূচি প্রশ্নে উত্তেজনার মধ্যেই পিয়ংইয়ং মঙ্গলবার মাঝারি পাল্লার হোয়াংসং-১২ নামের ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায়। এটি কোরীয় উপদ্বীপ অঞ্চলের পরিস্থিতিকে আরো উত্তেজনাপূর্ণ করে তোলে।

কিমের বরাত দিয়ে উত্তর কোরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা জানায়, পিয়ংইয়ং প্রয়োজনে ভবিষ্যতে আরো ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করবে।সাম্প্রতিক সময়ে একদিকে উত্তর কোরিয়া মার্কিন ভূ-খন্ড গুয়ামে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর হুমকি দিয়েছে। অপরদিকে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার হুমকি দিয়েছেন। সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের পর ট্রাম্প বলেন, উত্তর কোরিয়াকে কীভাবে শায়েস্তা করা যায় তার ‘সকল বিকল্প’ আলোচনার টেবিলে রাখা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রকে সম্মান জানানো শুরু করায় কিমকে অভিনন্দন জানানোর মাত্র কয়েকদিন পর সম্ভাব্য মার্কিন সামরিক পদক্ষেপের কথা পুনর্ব্যক্ত করলেন ট্রাম্প।

এদিকে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ সর্বসম্মতভাবে দেয়া এক বিবৃতিতে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের কঠোর নিন্দা জানিয়ে বলেছে, ‘এটি কেবলমাত্র এ অঞ্চলের জন্য নয়, জাতিসংঘের সকল সদস্য রাষ্ট্রের জন্য বড় হুমকি।’উত্তর কোরিয়ার মিত্র দেশ চীন ও রাশিয়া জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে উত্থাপিত মার্কিন খসড়া প্রস্তাবের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে। তবে তারা চাচ্ছে না যে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে দ্রুত কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হোক।