কারো উস্কানিতে শিল্প-কারখানায় যেন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয়: প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্কে: কারো উস্কানিতে শিল্প-কারখানায় যেন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয় সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ২৩৪ জন শ্রমিকের মাঝে অনুদানের চেক প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী শিল্পাঞ্চলে শ্রমিকদের জন্য আবাসন সুবিধা নিশ্চিত করতে মালিকদের প্রতি আহ্বান জানান। শ্রমিক কল্যাণে সরকারের সব ধরনের পদক্ষেপ অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

কখনো আগুনের লেলিহান শিখা, আবার কখনোবা নানা দুর্ঘটনায় বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয় তৈরী পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠানে।

এসব ঘটনায় উৎপাদন থমকে যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয় শিল্প প্রতিষ্ঠান, তেমনি এসব প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শ্রমিকরাও নানা প্রতিকূলতার সম্মুখীন হন।

হঠাৎ ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনা কিংবা নানাবিধ কারণে শ্রমিকরা প্রাণ হারান কিংবা পঙ্গুত্ব বরণ করে অক্ষম হয়ে পড়েন। এমন শ্রমিকদের পাশে দাঁড়াতে এবার আরো এক ধাপ এগিয়ে গেলো সরকার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তত্ত্বাবধানে দুর্ঘটনায় হতাহত শ্রমিকদের সহায়তায় গঠিত কেন্দ্রীয় তহবিল থেকে এই প্রথম ২৩৪ জনের হাতে তুলে দেয়া হলো আর্থিক সহায়তার চেক। শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে গঠিত এই তহবিলকে শ্রমিক বান্ধব কর্মপরিবেশ সৃষ্টির পথে দৃষ্টান্ত বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

চেক হস্তান্তর করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, লাভের পাশাপাশি ব্যবসায়ীদেরও নিশ্চিত করতে হবে শ্রমিকদের অধিকার, সচেতন থাকতে হবে তাদের পাওনার বিষয়েও।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা ব্যবসা করেন তারা অবশ্যই লাভ আপনারা নেবেন। শ্রমিকদের কল্যানে যারা দৃষ্টি দিয়েছেন এটি অব্যাহত রাখতে হবে। কারণ এই শ্রমিকরাইতো আপনার প্রতিষ্ঠান চালায়।’

এ সময়, রফতানি পণ্য বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন- শ্রমিকদেরও তাদের প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে। বাইরের কোনো উস্কানি কানে নেয়া যাবে না।

প্রধানমন্ত্রী শ্রমিকদের উদ্দেশে বলেন, ‘যে ইন্ডাস্ট্রি আপনাদের রুটি রুজির ব্যবস্থা করে সেখানে বাইরের কারো উস্কানিতে কোনো রকম দুর্ঘটনা যেনো না ঘটে সেটিকে বিশেষভাবে দেখতে হবে। শ্রমিক মালিকদের সব সময় সু সম্পর্ক থাকতে হবে।’

ভবিষ্যতে তৈরী পোশাক শিল্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত শ্রমিকদের সমন্বিত ডাটাবেইজ প্রণয়নের উদ্যোগকেও এগিয়ে নিতে সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।