নেইমাররা আমার উত্তরসূরি: রোনালদো

নিউজ ডেস্ক:  ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো অথবা লিওনেল মেসি- প্রায় এক দশক ধরে সেরার মুকুট পরছেন এই দুইজনের কোনো একজন। তারই ধারাবাহিকতায় গত বৃহস্পতিবার রাতে ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে টানা দ্বিতীয়বারের মতো উয়েফা বর্ষসেরার পুরস্কার জিতলেন রোনালদো। দুই ‘অতিমানব’র যুগে জন্ম গ্রহণ করে কি দুঃখ হয় নেইমার, লুইজ সুয়ারেজদের?
 
তা হতে পারে। কিন্তু বাস্তবতা এই যে, তাদের আধিপত্যও একদিন থাকবে না। তখন উত্তরসূরি হিসেবে কারা আসবেন? মোনাকোতে ২০১৭-১৮ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বের ড্র অনুষ্ঠানে তৃতীয়বারের মতো উয়েফা বর্ষসেরা হবার পর রোনালদো বলেন, ‘মার্কো অ্যাসেনসিয়ো, কিলিয়ান এমবাপে, নেইমার, ওসমান ডেমবেলে, হ্যাজার্ড, মার্কাসসহ আরো কিছু খেলোয়াড় অসাধারণ প্রতিভাবান। পরবর্তী  প্রজন্মের অন্তত ১০ জন আছেন, যারা আমার উত্তরসূরি হতে পারেন।’
 
গত মৌসুমে ইতিহাসের প্রথম ক্লাব হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদকে টানা দ্বিতীয়বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন রোনালদো। শেষ ষোল পর্যন্ত কিছুটা অনুজ্জ্বল থাকলেও আসল রোনালদোকে দেখা যায় কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে। শেষ আটে একটি হ্যাটট্রিকসহ বায়ার্নের বিপক্ষে দুই লেগ মিলিয়ে পাঁচ গোল করেন রিয়াল কিংবদন্তি। সেমি-ফাইনালে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের সঙ্গেও হ্যাটট্রিক করেছেন তিনি। এরপর জুভেন্টাসের বিপক্ষে ফাইনালে দুই গোল করে রিয়ালকে শিরোপা এনে দেন সিআর সেভেন।
  
উয়েফা বর্ষসেরার পাশাপাশি প্রথমবারের মতো চালু হওয়া অবস্থানগত পুরস্কারের সেরা স্ট্রাইকারের ট্রফি জেতা মাদ্রিদ তারকা বলেন, ‘প্রতি বছর আমার লক্ষ্য এক- ক্লাব এবং জাতীয় দলের হয়ে সবকিছু জেতা।’
  
পাঁচটি ইংলিশ দল থাকলেও রোনালদোর মতে, তারা কেউ শিরোপার দৌড়ে ফেবারিট নয়। হ্যাটট্রিক শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে অভিযান শুরু করতে যাওয়া রিয়াল তারকা বলেন, ‘প্রত্যেকবারের মতো এবারও ফেবারিট রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা, বায়ার্ন মিউনিখ, পিএসজি এবং জুভেন্টাস। আমি কোনো বিস্ময় আশা করছি না। এই পাঁচটি দলের চারটি সেমি-ফাইনাল খেলবে।’