রাজধানীতে শরৎ মেলা ও কারুশিল্প প্রদর্শনী চলছে

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) উদ্যোগে রাজধানীর মতিঝিলের বিসিক ভবনে চলছে পাঁচদিনব্যাপী শরৎ মেলা ও কারুশিল্প প্রদর্শনী।

গতকাল রোববার বিসিকের চেয়ারম্যান বেগম পরাগ প্রধান অতিথি হিসেবে এ মেলা ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিসিকের পরিচালক (নকশা ও বিপণন) মো. রেজাউল করিম। স্বাগত বক্তব্য দেন প্রধান নকশাবিদ বেগম মনোয়ারা খাতুন। এ সময় বিসিকের বিসিকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ও মেলায় অংশগ্রহণকারী কারুশিল্পীরা উপস্থিত ছিলেন।

বিসিকের চেয়ারম্যান বেগম পরাগ তার বক্তব্যে বলেন, কুটির ও হস্তশিল্প খাতের পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধির জন্য মেলায় নতুন ও ক্রেতাদের চাহিদানুযায়ী মানসম্পন্ন পণ্য উৎপাদনে গুরুত্ব দেন। এক্ষেত্রে বিসিক থেকে উদ্যোক্তা কারুশিল্পীদের সম্ভাব্য সব সেবা-সহায়তার আশ্বাস দেন তিনি।

এবারের মেলায় বিভিন্ন ধরনের পোশাক, নকশী কাঁথা, তাঁত ও জামদানি শাড়ি, পাটজাত হস্তশিল্প, আধুনিক পদ্ধতিতে উৎপাদিত মধু, খাদ্যজাত সামগ্রীসহ হস্ত ও কুটির শিল্পজাত পণ্যের বিপুল সমাহার রয়েছে।

এছাড়া মেলা উপলক্ষে জয়নুল আবেদিন প্রদর্শনকক্ষে কারুশিল্পীদের উৎপাদিত পণ্যসামগ্রী নিয়ে চলছে কারুশিল্প প্রদশর্নী।

মেলায় মোট ৫৬টি স্টল রয়েছে। মেলা চলবে আগামী ২৪ আগস্ট পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

বিসিক দেশব্যাপী ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প খাতের উন্নয়নে উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন ধরনের সেবা-সহায়তা প্রদান করে আসছে। এ খাতের বিকাশ ঘটিয়ে উৎপাদন ও আয় বৃদ্ধি এবং নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে বিসিক কর্তৃক অন্যান্য কাজের পাশাপাশি নকশা কেন্দ্রের মাধ্যমে ব্লক, বাটিক প্রিন্টিং, পুতুল তৈরি, স্ক্রিন প্রিন্টিং, প্যাকেজিং, বাঁশ-বেতের কাজ, পাটজাত হস্তশিল্প, চামড়াজাত পণ্য, ধাতব শিল্প, বুনন শিল্প ও ফ্যাশন ডিজাইন ইত্যাদি ১২টি ট্রেডে এ পর্যন্ত ২৮ হাজার ৪১৫ জন উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে।

তাছাড়া বিসিকের উদ্যোগে এখন পর্যন্ত নকশা উদ্ভাবন ও নমুনাকরণ ৩৩ হাজার ১২৪টি, মেলা ও প্রদর্শনীর আয়োজন
করা হয়েছে ১৭৩টি, শ্রেষ্ঠ ও দক্ষ কারুশিল্পী পুরস্কার দেওয়া হয়েছে ২৭৫ জনকে এবং ত্রৈমাসিক মেলার আয়োজন করা হয়েছে ৯৮টি।