আজ সাংবাদিকদের সঙ্গে ইসির সংলাপ শুরু

নিউজ ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ধারাবাহিক সংলাপের অংশ হিসেবে আজ বুধবার সংবাদপত্রের সাংবাদিকদের সঙ্গে সংলাপে বসেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

সকাল সোয়া ১০টার দিকে নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে নির্বাচন ভবনের সম্মেলনকক্ষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে এ সংলাপ শুরু হয়।

গণমাধ্যমের সঙ্গে দুইদিনব্যাপী সংলাপের প্রথম দিনে আজ সংবাদপত্রের সম্পাদক, সাংবাদিক নেতা ও জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকরা অংশ নেন।

ইসি সূত্র জানায়, সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত গণমাধ্যমের অন্তত ২০ জন প্রতিনিধি সংলাপে অংশ নিতে নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে আসেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন- মানবজমিনের প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান, ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, কালের কণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক, অপর অংশের মহাসচিব মো. আব্দুল্লাহ, প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন প্রমুখ।

এছাড়া আগামীকাল বৃহস্পতিবার ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া, অনলাইন ও রেডিও প্রতিনিধিদের সঙ্গে দ্বিতীয়দিনের সংলাপে বসবে ইসি।

ইসি সূত্র জানায়, এ সংলাপে অংশ নেয়ার জন্য ৭১ জন সিনিয়র সাংবাদিককে আমন্ত্রণ জানিয়েছে সাংবিধানিক নির্বাচন কমিশন। এরপর আগামী ২৪ আগস্ট থেকে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ শুরু হবে।
সংলাপের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের পরিচালক (জনসংযোগ) এসএম আসাদুজ্জামান জানান, আজ সংলাপে প্রিন্ট মিডিয়া ও জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক মিলিয়ে ৩৭ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। আর বৃহস্পতিবারের সংলাপে ইলেকট্রনিক মিডিয়া, অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও এজেন্সির প্রধান সম্পাদক এবং রেডিওর বার্তা প্রধানসহ ৩৪ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

আমন্ত্রিত ৭১ জনের মধ্যে বিটিভি, বাংলাদেশ বেতার ও প্রধান তথ্য কর্মকর্তাও রয়েছেন বলে জানান তিনি।

বৈঠকের কার্যপত্রে দেখা যায়, কর্মপরিকল্পনার সাতটি বিষয় ছাড়াও প্রাসঙ্গিক অন্য বিষয়েও মতামত শুনতে চায় ইসি।

এজন্য সংলাপে আমন্ত্রিতদের আমন্ত্রণপত্রের সঙ্গে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ম্যানুয়েল, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রোডম্যাপ ও সংসদীয় আসনের সীমানা নির্ধারণসংক্রান্ত আইনের কপি পাঠানো হয়।

বৈঠকে আলোচ্য বিষয়ের মধ্যে রয়েছে বিদ্যমান ইংরেজি আইন কাঠামো বিশেষ করে দ্য রিপ্রেজেন্টেশন অব দ্য পিপল অর্ডার- ১৯৭২ এবং দ্য ডিলিমিটেশন অব কনস্টিটিউয়েন্সিস অর্ডিন্যান্স-১৯৭৬ যুগোপযোগী করে বাংলা ভাষায় প্রণয়ন, বিগত নির্বাচনগুলোর অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে অবৈধ অর্থ এবং পেশিশক্তির ব্যবহার রোধ কল্পে আইনি কাঠামো সংস্কারসংক্রান্ত প্রস্তাবনা, সংসদীয় এলাকার সীমানা নির্ধারণকল্পে জনসংখ্যার পাশাপাশি ভোটার সংখ্যা, সংসদীয় এলাকার আয়তন এবং প্রশাসনিক অখণ্ডতা ও যোগাযোগব্যবস্থাকে গুরুত্ব দিয়ে ডিজিটাল টেকনোলজি ব্যবহারের মাধ্যমে সীমানা নির্ধারণ।

এ ছাড়া নির্বাচন প্রক্রিয়া যুগোপযোগী ও সহজীকরণের বিষয়ে আইনি কাঠামো ও প্রক্রিয়ায় প্রয়োজনীয় সংস্কার সাধন, প্রবাসী ভোটারদের ভোট দান নিশ্চিত করার বিষয়ে একটি আইন কাঠামোসহ প্রক্রিয়া প্রণয়নে প্রস্তাবনার ওপরও আলোচনা হবার কথা রয়েছে।

রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ ২৪ আগস্ট শুরু : আগামী ২৪ আগস্ট নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপে বসতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন।