ভারতে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

নিউজ ডেস্ক: ৭১তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করছে ভারতবাসী। স্বাধীনতা দিবসে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে মোদি বলেন, আমরা ভারতকে এমন একটি দেশ হিসেবে গড়ে তুলব যেখানে প্রতিটি দরিদ্র পরিবার একটি করে বাড়ি, বিদ্যুৎ এবং পানির সুবিধা পাবে।

এমন একটি ভারত হবে যেখানে কৃষকরা শান্তিতে ঘুমাতে পারবে। ২০২২ সালের মধ্যে দেশের কৃষকদের আয় বেড়ে দ্বিগুন হবে।

ভারত এমন একটি দেশ হবে যেখানে নারীরাও সব ক্ষেত্রেই কাজের সুযোগ সুবিধা পাবে। এমন একটি ভারত হবে যে দেশে সন্ত্রাস, দুর্নীতি, রাজনৈতিক সহিংসতা এবং বর্ণবাদ থাকবে না।

মোদি বলেন, ভারত হবে পরিস্কার এবং স্বাস্থ্যকর একটি দেশ। চলুন উন্নয়নের পথে সবাই একত্রে হাঁটি। বক্তৃতায় গোরখপুরের হাসপাতালে অক্সিজেনের সিলিন্ডার সরবরাহের সংকটে শিশুমৃত্যুর ঘটনার কথাও উল্লেখ করেন মোদি। মৃত শিশুদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শোকপ্রকাশ করেছেন এবং তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

মোদি বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ভারত একা নয় বরং পুরো বিশ্বই দাঁড়িয়েছে আমাদের পাশে। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে প্রমাণিত হয়েছে ভারত কতটা শক্তিশালী।’

অশান্ত কাশ্মিরের বিষয়ে মোদি বলেন, মুষ্টিমেয় কিছু বিচ্ছিন্নতাবাদী উপত্যকার সঙ্কটের পেছনে দায়ী। অর্থনৈতিক সংস্কারেও যে তার সরকার উদ্যোগী সে বিষয়টিও উল্লেখ করেছেন মোদি।

তিনি বলেন, ‘দেশে এখন সততার লড়াই চলছে আর মুখ লুকোচ্ছে দুর্নীতিগ্রস্তরা। নোটবাতিলের সিদ্ধান্ত সমর্থন করেছেন দেশবাসী। ৮শ কোটি টাকার বেনামি সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত হয়েছে। ভবিষ্যতে সরকার আরও কঠোর পদক্ষেপ করবে।’

পশ্চিমবঙ্গ, বিহার ও অসম প্রাকৃতিক সম্পদে পরিপূর্ণ। এই তিন রাজ্যকে দেশের উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা নিতে হবে বলে জানান মোদি। ২০২২ সালের মধ্যে নতুন ভারত তৈরির জন্য দেশবাসীকে শপথ নেয়ার আহ্বান জানান তিনি।