১৩ অক্টোবরের মধ্যেই শুরু হচ্ছে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ: হোরেশিয়ো

নিউজ ডেস্ক : টেক্সাসের বাসিন্দা জ্যোতিষী হোরেশিয়ো দাবি করেছেন, চলতি বছরের ১৩ অক্টোবরের মধ্যেই শুরু হচ্ছে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ!

শুধু তাই নয়, এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জ্যোতিষী জানিয়েছেন, এবারের যুদ্ধের পরিণতি প্রথম বা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের চেয়েও আরও মারাত্মক আকার ধারণ করবে।

টেক্সাসের বাসিন্দা বিখ্যাত জ্যোতিষী ক্যাথলিক হোরেশিয়ো’র ভবিষ্যদ্ববাণীকে তাই এবার আর হাল্কা ভাবে নিচ্ছে না সচেতন মহল। সম্প্রতি তাঁর এক দাবিকে কেন্দ্র করে আলোড়ন পড়েছে বিশ্বে।

এই পর্যন্ত যা যা বলেছেন তিনি, তার অধিকাংশই মিলে গিয়েছে।

মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে, এ বছরই কেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার ইঙ্গিত দিলেন তিনি?

এর সপক্ষে জ্যোতিষীর যুক্তি, লেডি অফ ফতিমা’র সর্বশেষ আবির্ভাব হয়েছিল ১৩ মে ১৯১৭ থেকে ১৩ অক্টোবর ১৯১৭’র মধ্যে। সেই ঘটনার ১০০ বছর পর অর্থাৎ চলতি বছরের ১৩ অক্টোবরের মধ্যে পৃথিবী ধ্বংসের পথে এগোতে শুরু করবে বলেই তাঁর বিশ্বাস।

অতীতে বেশ কয়েকবার মিলেছে হোরেশিয়ো’র ভবিষ্যদ্ববাণী।

টেক্সাসের জ্যোতিষী হোরেশিয়ো জানিয়েছিলেন, ট্রাম্প আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হবেন। তা মিলেছিল। আরও বলেছিলেন ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর সিরিয়া আক্রমণ করবেন। সেটাও মিলেছে।

চলতি বছরের গোড়াতেই সিরিয়ার হমসে আক্রমণ চালায় আমেরিকা। স্বাভাবিকভাবেই তাঁর এবারের দাবি ঘিরে বাড়ছে চাঞ্চল্য।

তবে হাজার হোক, বিজ্ঞানের ছোঁয়া যেখানে নেই, তা নিয়ে বিতর্ক থাকবেই। এক্ষেত্রেও সেটাই ঘটছে।

কিন্তু একই সঙ্গে বর্তমান বিশ্বের রাজনৈতিক অবস্থার কথাও মাথায় রাখছে মানুষ। শুধু সিরিয়া বা যুক্তরাষ্ট্রই নয়, ভারত-চীনের সম্পর্কও তলানিতে এসে ঠেকেছে।

প্রসঙ্গত, ফরাসি ভবিষ্যদ্বক্তা নস্ট্রাদামুস ২০১৭ নিয়ে বেশ কিছু নেতিবাচক ভবিষ্যৎবাণী করে গিয়েছেন আগেই। তিনি জানিয়েছিলেন, বিশ্ব উষ্ণায়নের জেরে রিসোর্স কমে আসায় ২০১৭ সালে সবচেয়ে বড় সমস্যাটি তৈরি হবে। এ ছাড়াও তিনি জানিয়েছিলেন, মানুষের সবচেয়ে বড় শক্রতে পরিণত হবে সন্ত্রাসবাদীরা ।