আটোয়ারীতে ভারী বর্ষণে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

 রায়হান চৌধূরী রকি, পঞ্চগড় : কয়েক দিনের টানা বর্ষনে পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। বাড়িঘরে পানি ওঠায় বেশ কিছু এলাকার লোকজন বাড়িঘর ছেড়ে স্কুলগুলোতে আশ্রয় নিয়েছে। এদিকে রেলপথ ডুবে যাওয়ায় ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার থেকে আটোয়ারীতে মুসলধারে বৃষ্টিপাত হয়। কয়েকদিনের ভারী বর্ষনে উপজেলার তোড়িয়া ইউনিয়নের বোধগাও, নিতুপাড়া, সুখাতি, নাওগজ, তোড়িয়া, আলোয়াখোয়া ইউনিয়নের বর্ষালুপাড়া, পাল্টাপাড়া, কোনপাড়া, রামপুর, বামনকুমার, লক্ষিরথান, রাধানগর ইউনিয়নের দুর্গাপুর, সাতপাখি, ছোটদাপ, রসেয়া, দিনমারা, মালিগাও, ঘোড়াডাঙ্গা, ধামোর ইউনিয়নের পুরাতন আটোয়ারী, সাবডিগজ।

পানিশাইল, রমজানপাড়া, সোনাপাতিলা, দলুয়া, শিকটিহাড়ী, মির্জাপুর ইউনিয়নের পূর্ব সর্দারপাড়া, খ্রিষ্টানপাড়া, খালপাড়া, মালিগাও, পানবারা, জুগিকাটা, বারআউলিয়া, পাখরতলা এবং বলরামপুর ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রাম, দোহসুহ ও চুচুলী এবং উপজেলার প্রধান বানিজ্য কেন্দ্র ফকিরগঞ্জ বাজারের ভিআইপি রোড ও গরু হাটি এলাকাসহ গোটা উপজেলার নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়েছে।

এসব এলাকার সাধারণ মানুষের বাড়িতে ও ওঠানে বৃষ্টির পানি ওঠায় শতশত মানুষ সন্তান পরিজন নিয়ে বোধগাও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সর্দারপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নলপুখুরী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে।

এদিকে ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় রেলপথের নয়নীবুরুজ এলাকায় ৫০২/১ হতে ৫০৪/৫ এলাকা পর্যন্ত প্রায় ২ কিলোমিটার রেলপথ পানির নীচে ডুবে যাওয়ায় ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঠাকুরগাঁও রেল স্টেশন মাস্টার মনসুর আলী জানান, উত্তরবঙ্গ মেইল সকাল ১০ টায় ঠাকুরগাঁও থেকে দিনাজপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার কথা।

কিন্তু ওই ট্রেনটি পঞ্চগড় রেল স্টেশনে আটকে থাকায় তা দিনাজপুর অভিমুখে যেতে পারেনি। দ্রুতযান শাটল সকাল ৭.৫৫ মিনিটে পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার কথা এবং কাঞ্চন এক্সপ্রেস ছেড়ে যাওয়ার কথা সকাল ১০.৩০ মিনিটে । কিন্তু অবিরাম বৃষ্টির পানিতে রেলপথ তলিয়ে যাওয়ায় ওই ট্রেন দুটি বর্তমানে ঠাকুরগাঁও স্টেশনে অবস্থান করছে। ফলে

সারাদেশের সঙ্গে ঠাকুরগাঁওয়ের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে।
এছাড়াও অব্যাহত ভারী বর্ষনে তোড়িয়া ভায়া নিতুপাড়া-ফকিরগঞ্জ বাজার সড়কের শিঙ্গিয়া ব্রীজ সংলগ্ন রাস্তা, নিতুপাড়া- শিঙ্গিয়া কাচাঁরাস্তাসহ গোটা উপজেলার প্রায় ২০টি রাস্তা ভেঙ্গে উপজেলা সদরের সাথে প্রায় ৩০ হাজার মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মোঃ আব্দুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন সুলতানা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ তৌহিদুল ইসলাম ও সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান মেম্বারগন বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তা ও ব্রীজ সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছেন।