সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সিপিএ কাজ করে যাচ্ছে: স্পিকার

সিঙ্গাপুর, ২৬ শ্রাবণ (১০ আগস্ট) : স্পিকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এসোসিয়েশন (সিপিএ) কমনওয়েলথভুক্ত ৫২টি রাষ্ট্রের সংসদীয় গণতন্ত্র চর্চার একটি অনন্য প্রতিষ্ঠান। বিশ্বব্যাপী সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও বিস্তারে এই প্রতিষ্ঠান কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি আজ সিঙ্গাপুরের পার্লামেন্ট ভবনে সিঙ্গাপুর পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার লিম বো চুয়ান (খরস ইরড়ি ঈযঁধহ) এর সাথে সিপিএ বিষয়ক এক বৈঠকে একথা বলেন।

বৈঠকে তাঁরা বাংলাদেশে অনুষ্ঠিতব্য ৬৩তম সিপিএ সম্মেলন, সিপিএ সিঙ্গাপুর ব্রাঞ্চের কার্যক্রম ও দ্বিপক্ষীয় স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। সিপিএ চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা, রাজনীতি ও সংসদীয় গণতন্ত্র সম্পর্কে বিশ্বের তরুণ সমাজকে আগ্রহী করে তুলতে সিপিএ কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, বর্তমান বিশ্বের মোট জনসংখ্যার এক-পঞ্চমাংশ তরুণ, এই তরুণ সমাজকে গণতান্ত্রিক চর্চায় উদ্বুদ্ধ করে বিশ্বশান্তি, সমৃদ্ধি ও মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠায় কাজে লাগাতে হবে।

তিনি আরো বলেন, আসন্ন ৬৩তম সিপিএ সম্মেলন ১-৮ নভেম্বর, ২০১৭ বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনকে সফল করতে ইতিমধ্যে প্রস্তুতিম‚লক কাজ শুরু হয়েছে বলে তিনি সিঙ্গাপুরের ডেপুটি স্পিকারকে অবহিত করেন। এসময় তিনি সিঙ্গাপুর পার্লামেন্টের একটি প্রতিনিধিদলকে আসন্ন সিপিএ সম্মেলনে অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানান।

সিঙ্গাপুরের ডেপুটি স্পিকার কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এসোসিয়েশন পরিচালনায় বাংলাদেশের স্পিকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর গতিশীল নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ১৩৬তম আইপিইউ এসেম্বলি আয়োজনে সক্ষমতা প্রমাণ করেছে। স্পিকারের নেতৃত্বে আসন্ন ৬৩তম সিপিএ সম্মেলন সফল হবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এর আগে স্পিকার সিঙ্গাপুর পার্লামেন্ট ভবন ঘুরে দেখেন।