মঠবাড়িয়ায় স্বামীর সাথে অভিমান করে তিন নারীর আত্বহত্যা

পিরোজপুর প্রতিনিধি: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বিয়ের স্বীকৃতি না পেয়ে ও পারিবারিক কলহের জের ধরে স্বামীর সাথে অভিমান করে ৩ নারী আত্বহত্যা করেছে। এরা হলেন, লভলী বেগম(২৮), জামিলা আক্তার (১৯) ও লাইজু আক্তার সখিনা(২০) নামের মঙ্গলবার সকালে ওই ৩ নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

থানা সূত্রে জানাগেছে, সোমবার রাত সাড়ে নটায় পার্শ্ববর্তী পাথরঘাটা উপজেলার খাশতাবক এলাকার মঞ্জুরুল আলমের মেয়ে লাভলী বেগম বরগুনা সরকারী কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাএ আলামিনের সাথে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়লে স্বামী মজিবর রহমান এ ঘটনা জানতে পেরে একমাস আগে তালাক দেয়।

লাভলী বেগম প্রেমিক আল-আমীনকে বিয়ের স্বীকৃতি চাইলে এতে প্রেমিক আল-আমীন রাজী না হওয়ায় গতকাল সোমবার (৭ জুলাই) রাতে ঘরে থাকা চালের পোকা নিধনের ওষুধ খেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে স্হানীয় ডৌয়াতলা চিকিৎসা কেন্দে ভর্তি করা হলে তার অবস্হার অবনতি ঘটলে তাকে মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তির পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে মঙ্গলবার (৮ জুলাই) সকালে পৌর শহরের কাছিছিড়া গ্রামের বেকার স্বামী রফিকুল ইসলামের ওপর অভিমান করে জামিলা আক্তার পিতার বসত ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

অপরদিকে সোমবার(৭ জুলাই) রাতে উপজেলার উত্তর মিঠাখালী গ্রামের হানিফ মাতুব্বরের মেয়ে লাইজু আক্তার সখিনার সন্তান না হওয়ায় স্বামী জাহাঙ্গীর হোসেনের নির্যাতন সইতে না পেরে ঘরের আড়ার সাথে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে। মংগলবার সকালে থানা পুলিশ পিতা হানিফ মাতুব্বরের বসতঘর থেকে তার লাশ উদ্ধার করে। ঘটনার পর থেকে স্বামী জাহাঙ্গীর পলাতক রয়েছে।

সখিনার মা মমতাজ বেগম জানান, বিয়ের চার বছর পরেও সখিনার সন্তান না হওয়ার কারনে জামাই প্রায়ই মেয়ের ওপর নির্যাতন করতো।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ও/ সি) কেএম তারিকুল ইসলাম তিন নারীর লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন। , তিনটি লাশেরই ময়না তদন্তের জন্য পিরোজপুর মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।