টাইগারদের ব্যাটিংয়ে মুগ্ধ ব্যাটিং কোচ

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের কারো মধ্যেই আপাতত বড় কোনো ত্রুটি দেখছেন না মার্ক ও’নীল। চট্টগ্রামে দুদিনের অনুশীলন দেখে টাইগারদের ব্যাটিংয়ে খুবই মুগ্ধ তিনি।

গতকাল রবিবার জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুশীলনের ফাঁকে গণমাধ্যমকে সেই ভালো লাগার কথাটাই জানালেন মাত্র এক মাসের জন্য বাংলাদেশের ব্যাটিং উপদেষ্টার দায়িত্ব পাওয়া এই সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

অনুশীলন সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘অনুশীলন বেশ ভালো হচ্ছে। ছেলেরা ভালো করছে ব্যাট হাতে। আমি খুব মুগ্ধ। বিশেষ করে আজকে তারা খুবই ভালো করেছে। টেস্ট ম্যাচে কৌশল কাজে লাগানোটা জরুরি। আমি সেটা নিয়েই কাজ করছি। আমি ছেলেদের টেস্ট ম্যাচের উপযোগী করে তৈরি করার চেষ্টা করছি। তারা যেন উইকেটের মূল্য বুঝতে পারে। আসলে টেস্ট ম্যাচটা হলো ধৈর্যের খেলা। তাদের বলেছি এমনকি যাতে নেটেও বাজে শট না খেলে।’

যদিও মাত্র এক মাসের চুক্তিতে কাজ করা ও’নীল নিশ্চিত নন যে, এই স্বল্প সময়ে কতোটা ছাপ ফেলা যাবে কাজে, ‘এক মাসে কাজ করে স্থায়ী ছাপ রেখে যাওয়া কঠিন। ছোট ছোট দিক নিয়ে কাজ করা যায়। এটা আসলে অনেকটা ট্রায়ালের মতো। অনেকটা এরকম যে চাকরির জন্য আবেদন করলাম, কিন্তু পরীক্ষা দেওয়ার আগেই কাজটা করতে হচ্ছে!’

বাংলাদেশের সব সময়ের একটা বড় সমস্যা হলো টেস্ট উপযোগী ব্যাটিং করতে না পারা। সামনে যেহেতু অস্ট্রেলিয়া সিরিজ, এই সময়ে টেস্ট ব্যাটিং নিয়ে ভাবনাটা আরো বেশি প্রাসঙ্গিক। ও’নীল বলছিলেন, তিনি টেস্ট মানসিকতা নিয়েই কাজ করছেন এখন, ‘চেষ্টা করছি ওদের টেস্ট ম্যাচের উপযোগী করে তৈরি করতে। টেস্ট ক্রিকেটে ব্যাটিংয়ের মৌলিক ব্যাপারটিই হলো ধৈর্য। নিজের শক্তির জায়গাটাতে অটল থাকা, অন্যের শক্তির জায়গায় পা না দেওয়া। নিজের ওপর বিশ্বাসটা গুরুত্বপূর্ণ।’

ও’নীলের দায়িত্বের একটা বড় অংশ লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানদের নিয়ে কাজ করা। তার মতে, লোয়ার অর্ডাররাও ব্যাট হাতে অবদান রাখতে পারেন ম্যাচ জয়ে। চেষ্টা করছেন, ব্যাটিংয়েও তাদের পর্যাপ্ত সময়টা দেওয়া নিশ্চিত করতে, ‘লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানদের একটা ব্যাপার হলো, বোলার হওয়ায় ব্যাটিং করার যথেষ্ট সময় ওরা পায় না।

অনুশীলনে পর্যাপ্ত সুযোগ পায় না। কিন্তু খেলোয়াড়ী ও কোচ জীবনে আমি অনেকবার দেখেছি, লোয়ার অর্ডাররা টিকে থেকে দলে অবদান রাখতে পারছে বলে দল জিতছে। ওদের কাছ থেকে কিছু পেতে হলে ওদের দিকে কিছুটা মনোযোগ দিতে হবে, অনুশীলনে ব্যাটিংয়ে সময় ও সুযোগ দিতে হবে। ওদেরকে উত্সাহ দিতে হবে যেন নিজেদের শক্তির জায়গা অনুযায়ী খেলে, যেন ভূমিকা রাখতে পারে এবং অপর প্রান্তের ব্যাটসম্যানকে স্ট্রাইক দিতে পারে।’