খুলনা সরকারি ল্যাবরেটরি স্কুলের সুবর্ণ জয়ন্তী’র প্রস্তুতি সভা

নিউজ ডেস্ক:  সরকারি ল্যাবরেটরি উচ্চ বিদ্যালয়, খুলনা-এর ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও সাবেক শিক্ষার্থীদের মধ্যে ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য। ৫০ বছর পূর্তি উৎসবকে যথার্থ তাৎপর্যময় করে তুলতে বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীরা এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

গতকাল শুক্রবার বিকালে রাজধানীর বিয়াম অডিটোরিয়ামে ঢাকায় বসবাসরত সাবেক ছাত্র ছাত্রীদের অংশগ্রহণের মধ্যে দিয়ে এক মতবিনিময় সভা আয়োজিত হয়। কাজী আবুল কালাম আজাদ (১৯৭১ ব্যাচ)-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেই সভায় সাবেক শিক্ষার্থীরা সুবর্ণ জয়ন্তীকে প্রাণবন্ত করতে বিভিন্ন পরামর্শ ও প্রস্তাব দিয়ে বক্তব্য রাখেন।

মতবিনিময় সভার প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অতিরিক্ত সচিব মো: মহিবুল হক, যিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের দায়িত্বে নিয়োজিত আছেন। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির জেনারেল সেক্রেটারী সাইফুল হক, মো: সেলিমুল হক যুগ্ম-সচিব (অব:), প্রকৌশলীঃ সৈয়দ মোক্তার আলী, বি এম আবুল হোসেন, সৈয়দ নওসাদুজ্জামান পল্টু ।

এ সময় খুলনা থেকে আগত সাবেক শিক্ষার্থীদের মধ্যে আরও ছিলেন মোঃ এমলাক ঢালী (১৯৭৮ ব্যাচ), শেখ আঃ রাজ্জাক (১৯৮১ ব্যাচ), শরীফ মোজাম্মেল হোসেন (১৯৮৪ ব্যাচ), শেখ আকরাম হোসেন (১৯৮৬ ব্যাচ), মোঃ আবেদ রাজ্জাক সৈকত (২০০৪ ব্যাচ) সহ আরোও অনেকে। যাদের দীর্ঘ দিনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আজকের এই সভার আয়োজন।

মতবিনিময় সভায় সাবেক শিক্ষার্থীরা সমন্বয় কমিটিকে আরও সম্প্রসারণসহ বিভিন্ন উপকমিটি গঠন করে কার্যক্রমকে সুন্দর ও গতিশীল করার আহবান জানান। সভায় ব্যাচ ও বিভাগওয়ারী সাবেক শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রনয়ণ, ঢাকাসহ দেশ ও দেশের বাইরে বিভিন্ন বিভাগ ও জেলাভিত্তিক সমন্বয় কমিটি করার পরামর্শসহ উৎসবে নূন্যতম রেজিস্ট্রেশন ফি নির্ধারণ করে পরিবারের অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টির আহবান জানানো হয়।

উক্ত আলোচনা সভা শেষে উপস্থিত সকলের আলোচনার ওপর ভিত্তি করে ঢাকা ভিত্তিক মূলত তিনটি উপ-কমিটি গঠন করা হয়। অর্থ উপ-কপমিটিতে রয়েছেন বি. এম আবুল হোসেন (১৯৭১ ব্যাচ), মোশতাক হোসেন (১৯৮৮ ব্যাচ), আশরাফুন নবী মাসুদ (১৯৯০ ব্যাচ), রেজাউল ইসলাম রেজা (১৯৯২ ব্যাচ), মোঃ হাবিবুল ইসলাম (১৯৯৫ ব্যাচ)।

নিবন্ধন উপ-কমিটিতে রয়েছেন আতিকুর রহমান শামীম (১৯৮৯ ব্যাচ), মামুনুর রশীদ (১৯৯২ ব্যাচ), মোঃ আবু হানিফ সোহেল (১৯৯৫ ব্যাচ), শাহেদ মাহমুদ রিংকু (২০০২ ব্যাচ)।

এছাড়াও প্রচার কমিটিতে রয়েছেন মোরসালিন আহমেদ (১৯৮৮ ব্যাচ), শামীম আহমেদ (১৯৮৮ ব্যাচ), আজিজুল হক টিটু (১৯৯৫ ব্যাচ), তনিমা ওসমানী (১৯৯৬ ব্যাচ), দিপক বিশ্বাস (১৯৯৮ ব্যাচ), আব্দুল্লাহ সিফাত তাফসীর (২০০৫ ব্যাচ)